আঙুর খান, মেদ কমিয়ে তারুণ্য ধরে রাখুন

|নুসরাত নীলিমা|

rupcare_grape1

আঙুর শুধু দেখতেই সুন্দর নয়, খেতেও সুস্বাদু ফল৷ তবে হালকা সবুজ রংয়ের আঙুর থেকে লাল বা গাঢ় সবুজ রংয়ের আঙুরে বেশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে৷ আঙুরে ভিটামিন সি তেমন না থাকলেও আঙুর ইনফেকশন থেকেও রক্ষা করতে সাহায্য করে৷ ওজন কমাতেও এটি ব্যাপক ভূমিকা রাখে। গরমকালে যথেষ্ট আঙুর খেলে শীতকালেও সুস্থ থাকা যায় – এমনটাও শোনা যায়৷

সম্ভবত আঙুর প্রথম এসেছে কৃষ্ণসাগরীয় অঞ্চল থেকে৷ তবে আজকাল বেশিরভাগ আঙুর আসে ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল থেকে৷ প্রাচীন গ্রিকদের কাছে পাঁচ হাজার বছর আগে থেকে আঙুরের তৈরি ওয়াইনকে ‘দেবতার রক্ত’ বলা হতো, যা আজও প্রতীকি চিহ্ন বহন করে৷ সারা বিশ্বে যত রকম গাছের চাষ করা হয়, সেগুলোর মধ্যে আঙুর সবচেয়ে পুরনো৷

30551e7aaadcc379899f94c3d36a0811_grape-sensation-skin-treatment-580x326_featuredImage

আঙুর খেয়ে ওজন কমান
সপ্তাহ দুয়েক প্রতিদিন বিচি ও খোসাসহ ২ কেজি আঙুর আর সাথে যথেষ্ট পরিমাণে পানি বা গ্রিন চা পান করলে কয়েক কেজি ওজন কমানো সম্ভব৷ তবে সে আঙুর হতে হবে অবশ্যই কোনো রকম কেমিকেল ছাড়া পুরোপুরি অর্গানিক উপায়ে চাষ করা৷ আঙুরের বড় গুণ – শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয়৷

300x300_477a4e48-1

আঙুরে রয়েছে প্রচুর ফাইবার
আঙুরের খোসা এবং বিচিতে রয়েছে প্রচুর ফাইবার, যা মানুষের ইমিউন সিস্টেমকে (রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা) শক্তিশালী করতে সাহায্য করে৷ আঙুরে অনেক বেশি পরিমাণে পটাশিয়াম থাকায় যা শরীরের বাড়তি পানি কমিয়ে প্রয়োজনীয় পানির ভারসাম্য রক্ষা করতে ভূমিকা পালন করে৷

অ্যান্টি এজিং (বার্ধক্য প্রতিরোধী)
শুধু গ্রিন টি বা সবুজ চা নয়, আঙুরও তারুণ্য ধরে রাখতে এবং রূপ লাবণ্য বাড়তে সাহায্য করে৷ শুধু তাই নয় আঙুর ক্যানসার সেলগুলোর বৃদ্ধি কমাতেও সাহায্য করে থাকে৷ আঙুর খান, সুন্দর থাকুন৷

fitness1

আঙুর থেকে তৈরী হয় ওয়াইন, যা সারা বিশ্বে খুবই জনপ্রিয়। আমাদের সংস্কৃতিতে মদ খাওয়ার প্রচলন নেই, মদ শুনলেই অনেকে আঁতকে ওঠেন৷ তবে পশ্চিমা ডাক্তার বা স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, সামান্য পরিমাণে রেড ওয়াইন খাওয়া খুবই ভালো৷ অর্থাৎ প্রতিদিন রাতে আধাগ্লাস থেকে একগ্লাস রেড ওয়াইন খেলে তা হার্ট ভালো রাখতে এবং শরীরের রক্ত চলাচলও ঠিক রাখতে সাহায্য করে৷ বলা বাহুল্য, রেড ওয়াইন তৈরি করা হয় আঙুর থেকেই৷

সূত্র: ডিডাব্লিউ

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin