আপনার সম্পর্কটিকে স্বপ্নের মতো সুন্দর করতে চাইলে জেনে নিন ১৭ টি ছোট্ট টিপস

rupcare_tips to make your relation as dream

সকলেই নিজের জীবনে সুখী থাকতে চান। সঙ্গীকে নিয়ে যখন আমরা স্বপ্ন সাজাই তখন সেখানে ছোটোখাটো অনেক ঝগড়া এবং বেশ কিছু নেতিবাচক জিনিস বাদ দিয়েই সাজাই। কারণ কেউই চান না এইধরনের পরিস্থিতি জীবনে আসুক। কিন্তু হয়তো আমাদেরই কিছু ছোটোখাটো বোঝার ভুল এবং সঙ্গীর প্রাপ্য জিনিসগুলো তাকে না দেয়ার কারণে সাজানো স্বপ্ন ভেঙে সেই নেতিবাচক জিনিসগুলোই ঘটতে থাকে জীবনে। তাই জেনে রাখা উচিত কিছু বিষয় যা সম্পর্ককে করবে স্বপ্নের মতোই সুন্দর।

১) আপনি যেমন তা নিয়ে খুশি থাকুন
নিজেকে ভালবাসতে না পারলে, নিজেকে নিয়ে সুখী হতে না পারলে জীবনে কখনোই সুখ খুঁজে পাবেন না। আর আপনি যদি নিজেকে ভালবাসতে না পারেন তবে সঙ্গীর কাছ থেকেও ভালোবাসা আশা করাটা বোকামি।

২) কথা শুনতে এবং বুঝতে শিখুন
সম্পর্কে সমস্যা তখনই শুরু হয় যখন একে অপরের কথা না শোনা এবং বুঝতে না পারাটা বেশি হয়। নিজেই চিন্তা করুন একসময় আপনিই ভাবতেন বাবা-মা আপনার কথা শোনেন না, আপনাকে আপনার ভাইবোন বোঝেন না, আপনার কর্মক্ষেত্রের বস আপনার কর্মক্ষমতা বুঝতে পারেন না ইত্যাদি। সম্পর্কের ক্ষেত্রেও একই জিনিস প্রযোজ্য। কথা যদি না শোনার মনোভাব থেকে থাকে তাহলে মানুষটিকে বোঝাও যায় না। তাই কথা শুনতে এবং বুঝতে শিখুন।

৩) সব সময় সব ব্যাপার ধরে বসে থাকবেন না
সঙ্গী যদি কিছু কথা বলেন তাহলে তা শুধুই পারসোনাললি নিয়ে ধরে বসে থাকবেন না। এতে শুধু সম্পর্কই নষ্ট হবে। কিছু কিছু সময় কথা হজম করার মানসিকতাও তৈরি করুন।

৪) ইতিবাচক চিন্তা করুন
সব সময় মাথায় ইতিবাচক ব্যাপারটি আনার চেষ্টা করুন। কারণ নেতিবাচক জিনিসটি মাথায় আসলেই সঙ্গীর প্রতি সন্দেহের সৃষ্টি হয়। মনে বাঁধতে থাকে সন্দেহের দানা যা সম্পর্কের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

৫) একসাথে খাবার খান
বিশেষ করে দুপুরের খাবারটি। যতোই ব্যস্ত থাকুন না কেন একটু সময় বের করে নিয়ে দুপুরের খাবারটা একসাথে খান। এতে করে দুজন দুজনের প্রতি গুরুত্বটা প্রকাশ করতে পারবেন।

৬) নতুন নতুন পথ খুঁজুন সম্পর্ক মধুর রাখতে
অনেকটা সময় ধরে সম্পর্ক চললে সম্পর্কে কিছুটা বোরিংনেস চলে আসে। এটি খুবই স্বাভাবিক। তাই সম্পর্ক তাজা রাখতে নতুন নতুন পন্থা খুঁজুন রোমান্সের। এতে করে গভীরতা আরও বাড়বে।

৭) ফোন ধরুন
যেখানে যে অবস্থাতেই থাকুন না কেন সঙ্গীর ফোন ধরুন। যদি মিটিংএ ব্যস্তও থাকুন না কেন শুধু ফোনটি ধরে মিষ্টি করে বলুন ‘আমি এখন মিটিংএ, ফ্রি হয়ে ফোন দিচ্ছি’। এই মাত্র ১০ সেকেন্ড কথা বলার কারণে আপনার চাকুরী চলে যাবে না।

৮) দুজনে মিলে কি করতে পছন্দ করেন তা খুঁজে বের করুন
এমন কিছু করার চেষ্টা করুন যা দুজনেরই পছন্দের। অনেক জুটি একসাথে খেলা দেখেন, মুভি পছন্দ করেন, ছবি আঁকেন। একসাথে এই ধরণের কাজগুলো করলে সম্পর্ক অনেকটা সহজ হয়ে আসে। বন্ধুত্বের মতো সহজ সম্পর্ক তৈরি হলে সে সম্পর্কের সফলতা বেড়ে যায় অনেকটা।

৯) কিছু কাজ নিজে থেকেই করুন
সঙ্গীর যেনো বলতে না হয়, ‘এই কাজটি করে দাও’। নিজের থেকে দায়িত্ব নিয়ে কিছু কাজ করে দিন। এতে সঙ্গী বেশ খুশিই থাকবেন।

১০) বিশ্বাস করতে শিখুন
যেখানে বিশ্বাস নেই সেখানে ভালোবাসা নেই। তাই বিশ্বাস করতে শিখুন। সঙ্গীর উপর ভরসা রাখুন।

১১) আপনি নিজে কি চান সে বিষয় পরিষ্কার থাকুন
অনেক সময় নিজের মনে দ্বিধা থাকলে তা সঙ্গীর উপর ঝেড়ে ফেলা অনেকের স্বভাব। এই কাজটি করতে যাবেন না একেবারেই। নিজে কি চান সে বিষয়ে আগে পরিষ্কার হোন, তারপর সঙ্গীর সাথে কথা বলুন।

১২) সঙ্গী কি চাইছেন তা বুঝুন
অনেক সময় সঙ্গী কি চান তা বুঝতে না পারার কারণেও অনেক সম্পর্কে টানাপোড়ন চলে আসে। তাই সঙ্গীকে বোঝার চেষ্টা করুন, তিনি কি চান তা বুঝুন।

১৩) রিমাইন্ডার দিয়ে রাখুন
অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ কিছু তারিখ বা বিষয় ভুলে গেলে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয় সম্পর্কে। তাই ঝামেলা না বাড়িয়ে ফোনে বা ক্যালেন্ডারে রিমাইন্ডার দিয়ে রাখুন।

১৪) কিছু বিষয় এড়িয়ে চলুন
যে বিষয়গুলো সামনে এলে দুজনের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয় সে সকল বিষয় খুঁজে বের করুন এবং খুব সাবধানে বিষয়গুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

১৫) হুট করে কিছু বলে বসবেন না
আপাত দৃষ্টিতে যা দেখছেন তার উপর বিবেচনা করে হুট করে কিছু বলে বসবেন না। আগে জানার চেষ্টা করুন সঙ্গীর কাজের পেছনের কারণ কি।

১৬) ধৈর্য ধরুন
খুব বেশি অধৈর্য হলে সম্পর্কে শান্তি থাকে না। কারণ তখন দুজনেই দুজনের কথা শোনার মতো ধৈর্য ধারণ করতে পারেন না। তাই শান্ত থাকুন ধৈর্য ধরুন।

১৭) যা বলার স্পষ্ট করে বলুন
কখনোই মনের দুঃখ, রাগ, অভিমান চেপে রাখবেন না। যা বলার স্পষ্ট করে বলে দিন। এতে হয়তো তাৎক্ষণিক ভাবে তর্ক হতে পারে কিন্তু মনের ভেতর থাকবে পরিষ্কার।

সূত্র: প্রিয় লাইফ

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin