চুলপরা রোধে পাঁচ কথা

|নুসরাত নীলিমা|

rupcare_hairfall1

বর্তমান সময়ে সৌন্দর্য ঠিক রাখার সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা হলো চুলপরা। অনেকেরই এই নিয়ে দুশ্চিন্তার শেষ নেই। প্রতিদিন গড়ে ১০০টা করে চুল পরা শরীরের একটি স্বাভাবিক ক্রিয়া। কিন্ত যদি এর বেশি চুল পরে তাহলে তা সত্যিই চিন্তার বিষয়। এটি রোধ করার জন্য অনেকেই অনেক পন্থা অবলম্বন করে। তবে আপনি যদি চুল ঝরার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করতে চান তাহলে মানতে হবে পাঁচটি কথা। দেখা যাক কি সেই পাঁচ কথা।

প্রথমত, খেতে হবে সঠিক খাবার:

rupcare_hairfall3চুলপরা রোধে প্রথম ধাপ হলো সঠিক খাবার। আপনার শরীর যদি সঠিক পুষ্টি না পায় তাহলে আপনার চুলও দূর্বল হয়ে যাবে, যার ফল হলে চুলঝরে যাওয়া। আপনার খাবারে থাকতে হবে প্রচুর ভিটামিন-ই এবং আয়রন যা আপনি পেতে পারেন সয়াবিন থেকে। বর্তমানে বাজারে সয়া নাগেটস্‌ খুবই জনপ্রিয়। আয়রন মাথার ত্বকে অক্সিজেন সরবরাহ করে এবং ভিটামিন-ই রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করে।

ভেজিটেবল প্রোটিনও চুলের জন্য খুবই দরকারী, করণ এতে আছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড যা চুলপরা রোধে এন্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে। এর জন্য খেতে হবে মাছ এবং প্রচুর শাক-সব্জি। ভিটামিন সি একইভাবে কাজ করে যা পাবেন লেবু এবং কমলা থেকে। ছোলার ডালে আছে জিংক এবং ভিটামিন বি৬। এই দুটোর অভাবে চুল খুশকি দ্বারা আক্রান্ত হয়, যা চুল পরার অন্যতম কারণ।

দ্বিতীয়ত, চুলে নিয়মিত ম্যাসাজ করুন:

Head massageপ্রতিদিন ১০-১৫ মিনিট চুলের ম্যাসাজ মাথার ত্বকে রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি করে। যার ফলে চুলপরা রোধ এবং নতুন করে চুল গজানোর সম্ভাবনাও বৃদ্ধি পায়। কোকোনাট কিংবা এলমন্ড অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করলে চুলপরা রোধ হওয়ার সাথে সাথে খুশকি দূর হবে এবং চুল স্বাস্থ্যজ্জ্বল ঝলমলে হয়ে উঠবে।

মাথার ত্বকে পেঁয়াজবাটা ঘষলে নতুন চুল গজানোর সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়।

 

তৃতীয়ত, চুলে দিন হারবাল যত্ন:

rupcare_hairfall8এলোভেরার গুণের কথা আমরা সবাই জানি। এলোভেরার নির্যাস মাথার ত্বকে প্রয়োগ করুন। এটি আপনার চুলের গোড়ার pH (এসিড ব্যালেন্স) ঠিক রেখে এবং পরিষ্কার করে চুলপরা প্রতিরোধ করবে।

চুলপরা রোধে মেহেদী সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত। এটি চুলকে করে স্বাস্থ্যজ্জ্বল ও মজবুত।

মেথি গুড়াও চুলপরা রোধে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

উক্ত প্যাকগুলো মাসে দুই-তিনবার ব্যবহার করলে চুলপরা অনেক কমে যাবে।
এছাড়া চুলে মাঝে মাঝে ডিম, ভিটামিন-ই ক্যাপ মাখলেও উপকার পাওয়া যায়।

 

চতুর্থত, পরিষ্কার রাখুন শরীরের ভেতর এবং বাহির:

অস্বাস্থ্যকর খাবার শরীরের ভেতর টক্সিন তৈরী করে, যা আপনার চুল এবং ত্বকের rupcare_hairfall9জন্যও ক্ষতি বয়ে আনে। স্বাস্থ্যসম্মত খাবার যেমন শাক-সব্জি, ফলমূল অর্থাৎ ভিটামিন এবং খনিজ লবন সমৃদ্ধ খাদ্য আপনার শরীরের ভেতরের জীবাণু যেমন দূর করে তেমনি ত্বক ঠিক রেখে চুলপরা রোধেও সাহায্য করে। প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি খাওয়ার ফলে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে, যা চুলকেও সতেজ রাখে।

 

পঞ্চমত, সবশেষে একটু ব্যায়াম:

প্রতিদিনrupcare_hairfall2 একটু করে ব্যায়ম করলে শরীর ফিট থাকার পাশাপাশি রক্ত সরবরাহ ঠিক থাকে। যার ফলে চুলও পুষ্টি থেকে বঞ্চিত হয় না।

 

 

চুল নিয়ে যারা এতোদিন দুশ্চিন্তায় ঘুমাতে পারেননি তাদের বলছি, মেনে চলুন এই পাঁচ কথা আর দুশ্চিন্তাও ঝেড়ে ফেলুন। কারণ দুশ্চিন্তা করাও কিন্তু চুল পরার একটি কারণ।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin