‘ছুটি দিন, না হলে স্ত্রী ছেড়ে চলে যাবে’

if-not-wife-will-leave-143666376

স্ত্রীর সঙ্গে দেখা হয়নি তার প্রায় চার মাস। স্ত্রীর চাওয়া অন্তত ১০ দিন পরপর বাসায় যাবেন তার স্বামী। অন্যথায় যাওয়ার দরকার নেই। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন। চাকরিস্থল থেকে ছুটি না পাওয়ায় স্ত্রীর আবদার মেটাতে পারেন না তিনি। বলা হচ্ছিল, ধর্মেন্দ্র সিংহ নামে ভারতের উত্তর প্রদেশের এক পুলিশ কর্মকর্তার কথা।

এবিপি আনন্দের প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তরপ্রদেশের লখনৌ পুলিশ কনস্টেবল ধর্মেন্দ্র সিংহ। সদ্য বিয়ে করেছেন। তার পোস্টিং হচ্ছে আগরা রোডের শাহগঞ্জে। সম্প্রতি লখনৌর অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে ছুটি চেয়ে একটি চিঠি লিখেছে ধর্মেন্দ্র।

চিঠিতে ধর্মেন্দ্র লিখেন, ‘আমার নতুন বিয়ে হয়েছে। আমার সবসময়ই স্ত্রীর কথা মনে পড়ে। ফলে কাজে মন দিতে পারি না। আমার বাড়ি যাওয়া দরকার।’

ছুটির আবেদনে ধর্মেন্দ্র লিখেন, ‘স্ত্রীর সঙ্গে দেখা হয়নি চার মাস। কারণ, আমি ছুটি পাইনি। আমাকে যদি ছুটি না দেওয়া হয়, তাহলে হয়তো স্ত্রী ছেড়ে চলে যাবে। ও চাইছে আমি ১০ দিন অন্তর বাড়ি যাই। স্ত্রী বলেছে, আমি যদি ১০ দিন অন্তর বাড়ি না যাই, তাহলে যাওয়ার দরকার নেই।’

এই চিঠি দেওয়ার পরেই আটদিনের ছুটি পেয়েছেন ধর্মেন্দ্র সিংহ।

রাজ্যের এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘একজন কনস্টেবল সাধারণভাবে বছরে ৩০ দিন ছুটি পান। তাদের প্রতি সপ্তাহে একদিন করে ছুটি পাওয়ার কথা। সব জেলার পুলিশ বিভাগের প্রধানরা ছুটি মঞ্জুর করেন। কিন্তু কাজের চাপের জন্য সবাই ছুটি পান না।

কনস্টেবলদের মনোবল বাড়ানোর জন্য নানা ব্যবস্থা নিচ্ছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। ডিজিপি নিজে তাদের ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ পুরস্কার দিচ্ছেন। যে পুলিশকর্মীরা টানা ১০ দিন কাজ করেন, তাদের একদিন ছুটি দেওয়ার নিয়ম চালু করা হয়েছে।’

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin