জমকালো পার্টি সাজেও ফুটিয়ে তুলুন ন্যাচারাল লুকস্‌

|মারজান ইমু|

rupcare_party makeup5

মেকআপে এখন ন্যাচারাল হাওয়া। বিয়ে বা পার্টিতে জমকালো আর ভারী সাজ তো লাগবেই। কিন্তু এর মাঝেও নিজের ন্যাচারাল লুকস্‌টা যেন না হারায়। তবেই আপনার মেকআপ হবে পরিপূর্ণ। এরকম জমকালো সাজেও নিজেকে কিভাবে ফুটিয়ে তুলবেন জানতে বিস্তারিত পড়ুন।

মেকআপের মূল বেইস
ভারি ফাউন্ডেশন এড়িয়ে চলুন যতটা সম্ভব। দিনের বেলা ম্যাট ফাউন্ডেশন দিয়ে বেইস করুন। ত্বক তৈলাক্ত হলে প্রথমে সারা মুখে লুজ পাউডার লাগিয়ে তারপর ফাউন্ডেশন লাগান। মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী হবে। ত্বক শুষ্ক হলে আগে বিবি বা সিসি ক্রিম লাগিয়ে তারপর ফাউন্ডেশন লাগান। আর মিশ্র ত্বকের ক্ষেত্রে মুখের টি জোন বাদ দিয়ে বাকি অংশে ক্রিম এবং টি জোনে পাউডার দিন। তারপর ফাউন্ডেশন দিন।rupcare_party makeup4 ত্বক যা-ই হোক, কমপ্যাক্ট পাউডার দিয়ে শেষ করুন বেইস মেকআপ। রাতের সাজে তৈলাক্ত ত্বকে দিন লিকুইড ফাউন্ডেশন আর শুষ্ক ত্বকে ক্রিম ফাউন্ডেশন। তারপর প্যানকেক। জমকালো আর ভারি সাজেই কেবল প্যানকেক মানানসই। সাধারণত হলুদ আর গোলাপি এই দুটি রঙের প্যানকেক ব্যবহৃত হয়। প্রথমে হলুদ প্যানকেক দিয়ে, তারপর ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে গোলাপি শেডের প্যানকেক দিন। গায়ের রং চাপা হলে হলুদ আর গোলাপি সমপরিমাণে ব্লেন্ড করে লাগান। উজ্জ্বল ত্বকের ক্ষেত্রে হলুদের পরিমাণ গোলাপির চেয়ে কম লাগবে। তবে সব ক্ষেত্রেই মেকআপ ব্লেন্ডিং খুব জরুরি। ত্বকের সঙ্গে বেইস যত ভালোভাবে মিশে যাবে, ততই ন্যাচারাল লুক আসবে। তারপর কমপ্যাক্ট পাউডার দিন। রাতের জমকালো পার্টিতে চাইলে শিমার পাউডার ব্যবহার করতে পারেন।

কনট্যুরিং
কনট্যুর হচ্ছে মুখের কিছু অংশ ঢেকে দেওয়া আর কিছু অংশ হাইলাইট করা। যেমন- নাক একটু টিকোলো দেখানোর জন্য নাকের দুই পাশে গাঢ় শেডের কনসিলার দিয়ে ওপরে লম্বা করে হালকা শেডের কনসিলার দিন। একইভাবে চোয়ালের শেপ ঠিক করে নিন। কনসিলার ছাড়াও ব্রোঞ্জিং পাউডার দিয়ে কনট্যুর ও হাইলাইট করতে পারেন।

rupcare_party makeup1চোখ আর ঠোঁটে চাই বৈপরীত্য
একটা সময় মেকআপ ট্রেন্ডে চোখ আর ঠোঁট সমানভাবে হাইলাইট করা হতো। এখন সে চল নেই। অশান্ত, অবাধ্য নিয়ন রঙের ঠোঁটের ট্রেন্ডে এখন চোখটা বেশ শান্ত, স্নিগ্ধ আর মার্জিত। আপনি চাইলে চোখকেও হাইলাইট করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে ঠোঁটের জন্য নুডস লিপস্টিক বেছে নিন। ন্যাচারাল স্কিন কালারই এ ক্ষেত্রে মানানসই। মোটকথা হালকা বা ভারি, সাজ যা-ই হোক, চোখ আর ঠোঁট হবে বিপরীত। চোখের সাজে লাইনার, মাশকারা আর শ্যাডো ব্যবহার করা হয়। লাইনার চোখের সাজ ফুটিয়ে তোলে, মাশকারা সৌন্দর্য খুলে দেয় আর শ্যাডো বাড়ায় সৌন্দর্য। দিনের সাজে তিনটি একসঙ্গে ব্যবহার না করে যেকোনো দুটি বা একটিতে সীমাবদ্ধ রাখুন। লাইনার, মাশকারা অথবা মাশকারা শ্যাডো ভালো জুটি। একটি চাইলে শুধু মাশকারা। কাজল ও আইলাইনারের চেয়ে মাশকারাকে প্রাধান্য দিন। চোখের পাতা ঘন দেখালে আরো আকর্ষণীয় লাগবে চোখটা। যাঁরা কাজল ও আইলাইনার পছন্দ করেন, তাঁরা চোখ টেনে দিতে পারেন। তিনটি একসঙ্গে কেবল রাতের সাজেই চলতে পারে। শীতে ম্যাট লিপস্টিকের বদলে ক্রিম বা হাইড্রেটেড ফিনিশের লিপস্টিক ব্যবহার করুন। লিপগ্লসও চলতে পারে। খুব বেশি উজ্জ্বল রং চাইলে প্রথমে লিপস্টিক দিয়ে তার ওপর ন্যাচারাল লিপগ্লস দিন।

ব্লাশন
চোখ বা ঠোঁট ক্ষেত্রবিশেষে আলাদা করে হাইলাইট হলেও ব্লাশন সব সময়ই হালকা।rupcare_party makeup2 এমনকি রাতের পার্টিতেও আর গাঢ় ব্লাশনের চল নেই। ব্লাশনের রঙে অনেক শেড আছে। এই শেডগুলো সাধারণত বাদামি থেকে শুরু হয়ে গোলাপিতে শেষ হয়। গায়ের রং চাপা হলে বাদামি আর গোলাপি মিশিয়ে ব্যবহার করুন। আর উজ্জ্বল ত্বকের জন্য গোলাপির যেকোনো শেডই মানানসই।

মেকআপ কিটে রাখুন
মেকআপ সাজান আপনার ত্বকবান্ধব কিট দিয়ে। ময়েশ্চারাইজার, সানস্ক্রিন, কনসিলার, প্যানকেক, ফাউন্ডেশন, কমপ্যাক্ট পাউডার, মাশকারা, আইশ্যাডো, আইলাইনার, কাজল, লিপস্টিক, লিপলাইনার, ব্লাশন, শিমার পাউডার ও ব্রাশ সেট রাখুন মেকআপ কিটে। মেকআপ তোলা বা চটজলদি রিটাচ করার জন্য ক্লিনজিং মিল্ক রাখুন। ত্বকের ধরন বুঝে নির্বাচন করুন এসব কসমেটিকস। গরম শীত, আবহাওয়ার সঙ্গে বদলে ফেলুন মেকআপ কিটের সরঞ্জামও। কেনার সময় অবশ্য ভালো ব্র্যান্ড দেখে কিনুন। একই সঙ্গে পণ্যের গুণগত মান ও মেয়াদ দেখে নিন। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নামি কসমেটিকসও ত্বকের জন্য ক্ষতিকর।

তথ্যসূত্র: কালেরকন্ঠ
ছবি কৃতজ্ঞতা: লুকস্‌বিডি, ওয়েডিংস্টোরিবিডি, ফ্লিকার