জীবনে সুখ পেতে মন থেকে ৭টি নেতিবাচক চিন্তা ঝেড়ে ফেলুন

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

rupcare_key to happiness

জীবনটাকে সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যময় করতে হলে আপনার মনের বহু বিষাক্ত চিন্তা ঝেড়ে ফেলা জরুরি। এসব নেতিবাচক চিন্তা মূলত জীবনের সময়গুলোকে দুর্বিষহ করে তোলে। প্রতিটি সুখের মুহূর্তকে নষ্ট করে তুলবে দুশ্চিন্তা। এ ধরনের বাজে চিন্তার কোনো শেষ নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা সাতটি বিষাক্ত চিন্তার খোঁজ মিলিয়ে দিচ্ছেন যেগুলো ত্যাগ করলে জীবনটা অনেক সুন্দর ও স্বাচ্ছন্দ্যময় হয়ে উঠবে।

১. অন্যকে পরিবর্তন করবেন বলে ভাবা
কাছের কোনো মানুষ তো আছেনই অন্য যেকোনো মানুষকে বদলে দিতে পারবেন- এমন ভাবনা আপনার সবচেয়ে বিষাক্ত চিন্তাগুলোর মধ্যে একটি যা জীবনে শান্তি দেবে না। আপনি যতো চেষ্টাই করুন এবং যাই করুন, অন্যদের বদলানো যায় না। একইভাবে অন্যরা আপনাকে কখনো বদলাতে পারবে না। কাজেই এ ক্ষেত্রে যারা যেমন তাদেরকে তেমনভাবেই গ্রহণ করা উচিত।

২. নিজেকে ‘শিকার’ বলে আশঙ্কা করা
আপনি হয়তো কখনোই কারো শিকার নন, কিন্তু বিষয়টাকে এভাবে দেখছেন। এটা আসলে অনেকটা সহজাত চিন্তা। নিজের সমস্যার জন্য অন্যকে নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখাটা আপনার নিজের সমস্যা। আপনার সমস্যাগুলো আপনি নিজেই সমাধান করতে পারবেন। পৃথিবীটাকে নিজের প্রতিপক্ষ মনে করাটা আপনার ভুল। জীবনে বেশিরভাগ ব্যক্তিগত সমস্যা আসলে মানুষ নিজেই তৈরি করে।

৩. অন্যরা আপনাকে পছন্দ করে না বলে ভাবা
হতে পারে আপনাকে অনেকেই পছন্দ করেন না। এটা স্বাভাবিক বিষয়। আপনিও অনেক মানুষকেই পছন্দ করেন না। কাজেই অন্যের পছন্দ না করার বিষয়টি আপনাকে কেন কষ্ট দেবে? এমন গুটি কয়েকজনকে আপনি খুঁজে পাবেন যারা হয়তো আপনাকে পছন্দ করেন না। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ আপনাকে পছন্দ করেন এবং এ ব্যাপারটি মাথায় রাখুন।

৪. ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তা করা
ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করাটা ভালো। কিন্তু সব সময় দুশ্চিন্তা করা উচিত নয়। বরং ভবিষ্যতে কী হতে পারে তা নিয়ে ভাবানা-চিন্তা করুন। এটা আসলে আপনার আগ্রহের বিষয়, দুশ্চিন্তা নয়। ভবিষ্যতের লক্ষ্য নির্ধারণ করুন এবং তাতে এগিয়ে যাওয়া চেষ্টা করুন। এমন হতে পারে আপনি লক্ষ্যে কখনোই পৌঁছতে পারবেন না। এটা দুশ্চিন্তার বিষয় নয়। সামনে বহু পথ খোলা রয়েছে।

৫. অতীত নিজের পরিচয় গড়ে তোলে বলে ভাবা
অতীত আপনার ভবিষ্যতের বেশ কিছু বিষয় নির্ধারণ করতে পারে। তাই বলে অতীত জীবনের গোটা ভবিষ্যৎ বানিয়ে দেয় না। আর্থসামাজিক অবস্থা ও পরিস্থিতির বিবেচনায় আপনার অতীতের কিছু ভুল থাকতেই পারে। তবে তা যে ভবিষ্যত ঠিক করে দেবে তা ভাবার কিছু নেই। নিজের ভবিষ্যৎটাকে নিজেই বদলাতে পারেন আপনি।

৬. সুখী হতে বহু অর্থের প্রয়োজন বলে মনে করা
অর্থ আপনার বহু চাহিদা পূরণ করতে পারে যা আপনাকে সুখ এনে দেবে। কিন্তু জীবনের সার্বিক সুখ অর্থ দিতে পারে না। আবার সুখের জন্য অর্থ খরচ করেও সুখ নাও আসতে পারে। কাজেই শুধু টাকাই সুখ আনে না। অর্থ থাকাটা ভালো। এতে আপনার অনেক সমস্যার সমাধান হবে বা প্রয়োজন মেটাতে পারবেন। কিন্তু সুখের গ্যারান্টি দিতে পারে না অর্থ।

৭. আপনাকে ত্রুটিহীন হতে হবে বলে ভাবা
ইচ্ছেগুলোকে নিখুঁতভাবে পূরণ হওয়ার চাহিদা ত্যাগ করুন। এমন কারোর হয় না। কাজেই আপনারও হবে না। আমরা মানুষ এবং আমাদের ভুল হবেই। কাজেই সবকিছু নিখুঁত হবে না। বর্তমানের ভুলের শিক্ষা ভবিষ্যতের জন্য অভিজ্ঞতা হিসেবে নিজের মধ্যে রাখুন। ত্রুটিহীন কিছু না হলে সে জন্য আক্ষেপ করবেন না। এতে মনের সুখ নষ্ট হয়।

তথ্যসূত্র: কালেরকণ্ঠ