টাকা জমাতে গিয়ে যে ৮টি ভুল করছেন আপনি

কিছু মানুষ খুব কম আয় থেকেও প্রচুর টাকা জমিয়ে ফেলতে পারেন। আবার কিছু মানুষের আয় যতই বাড়ুক না কেন, কিছুতেই তারা টাকা জমাতে পারেন না। এমন নয় যে তারা খুব খরুচে। বরং নিজেদের অজান্তেই কিছু ভুল করছেন তারা, যে কারণে দিনের পর দিন টাকা জমাতে ব্যর্থ হচ্ছেন।


কিছু মানুষ খুব কম আয় থেকেও প্রচুর টাকা জমিয়ে ফেলতে পারেন। আবার কিছু মানুষের আয় যতই বাড়ুক না কেন, কিছুতেই তারা টাকা জমাতে পারেন না। এমন নয় যে তারা খুব খরুচে। বরং নিজেদের অজান্তেই কিছু ভুল করছেন তারা, যে কারণে দিনের পর দিন টাকা জমাতে ব্যর্থ হচ্ছেন।

১) বিল দেওয়ার সময়ে খেয়াল করছেন না

অনেকেই বাড়ি ভাড়ার সাথে অন্যান্য বিলগুলোও একসাথে দিয়ে দেন তেমন হিসেব না করেই। কিন্তু এসব বিল নিয়ে বসলে আপনি দেখতে পাবেন কোথায় কোথায় খরচ বেশি হচ্ছে। হয়তো বাড়িতে কেউ টিভি দেখেন না, অথচ আপনি কেবলের বিল দিয়ে চলেছেন দিনের পর দিন। আবার ইন্টারনেট খরচের দিকে নজর দিলে হয়তো দেখা যাবে একটা রাউটার কিনলে খরচ অনেকটা কমে আসবে। এসব খরচের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।

২) আপনি ‘অবসরে’ যাওয়ার জন্য টাকা জমাচ্ছেন

অবসরে যাওয়ার জন্য টাকা জমানোটা জরুরী বলে মানেন অনেকেই। কিন্তু ক্যারিয়ারের শুরুর দিকেই অবসর নিয়ে চিন্তা করা ঠিক নয়। এ সময়ে টাকা জমানোটাকে ভবিষ্যতের বিনিয়োগের পুঁজি হিসেবে দেখা উচিত। যতটা সম্ভব বিনিয়োগের মাধ্যমে আয় বাড়ানোর দিকে মনোযোগ দিন।

৩) আপনি বিনিয়োগ করতে পারেন না

ভবিষ্যতের জন্য বিনিয়োগ কীভাবে করবেন তা নিয়ে বিভ্রান্ত থাকেন অনেকেই। কিন্তু সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হচ্ছে দেখে বসে থাকবেন না। টাকা বিনিয়োগ করতে শুরু করুন।

৪) বেতন বাড়লেও আপনার টাকা জমানো বাড়ে না

১০ হাজার টাকা বেতনে আপনি যে কয়টি টাকা জমাতেন, ২০ হাজার টাকা বেতনেও কী একই পরিমাণ টাকা জমাচ্ছেন? ভেবে দেখুন। আপনার যে শতাংশ বেতন বাড়ছে, টাকা জমানোও সেই একই শতাংশ বাড়ানোর চেষ্টা করুন।

৫) আপনি সেভিংস অ্যাকাউন্টের দিকে মনোযোগ দেন না

আপনি শুধু বছরের দুয়েকটা বোনাসের টাকা রাখছেন সেভিংস অ্যাকাউন্টে? তাহলে বেশ বড় ভুল করছেন। বরং এমন ব্যবস্থা করুন যাতে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে একটা নির্দিষ্ট অংকের টাকা প্রতি মাসে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই সেভিংস অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। এতে টাকা জমানো নিয়ে চিন্তা অনেকটা কমে যাবে।

৬) আপনি বেতন পেয়েই অপ্রয়োজনীয় খরচ করে ফেলেন

একে বিশেষজ্ঞরা বলেন ‘সেলিব্রেশন এক্সপেনসেস’। বেতন পাওয়ার পরেই অনেকে খুশি হয়ে যান এবং খুশিতে ফুরফুরে মনে অনেক শপিং করে ফেলেন। কিন্তু তা করতে গিয়ে টাকা জমানোর বারোটা বেজে যাচ্ছে। বেতন পাওয়ার পর হিসেব করে নিন কতটা টাকা জমাবেন, বাকিটা বাজেট করে ফেলুন যে এই টাকা কী কী খরচে যাবে।

৭) আপনি স্বামী/স্ত্রীর সাথে আর্থিক বিষয়ে কথা বলেন না

আর্থিক বিষয়ে আলোচনাটা অনেকেই এড়িয়ে চলেন, বিশেষ করে জীবনসঙ্গীর সাথে। কিন্তু তা একেবারেই অনুচিত। বিশেষ করে টাকা জমানোর কাজটি দুজনে মিলেই করা উচিত। কে কতো টাকা জমিয়ে রেখেছেন, তা ভবিষ্যতে কী কাজে আসবে সে ব্যাপারে খোলাখুলি কথা বলে দুজনের জন্যই জরুরী।

৮) আপনি টাকা অযথাই ফেলে রেখেছেন

টাকা জমানোর জন্য আপনি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছেন না, বরং বাড়িতেই গুচ্ছের টাকা জমা করে রেখেছেন। এই কাজটি মারাত্মক ভুল। টাকা কাজে লাগান, কোথাও বিনিয়োগ করুন বা ব্যাংকে এমন অ্যাকাউন্টে জমা করুন যেখানে এই টাকা থেকে রিটার্ন আসবে।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট