টোনারের সঠিক ব্যবহার

|অনামিকা মৌ|

টোনার ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত পণ্যগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি। এটি আপনার ত্বকের ময়লা গভীর থেকে দূর করে স্কিন পিএইচ ব্যালেন্স ঠিক রাখে। টোনার সাধারণত সাবান বা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়ার পর এবং মেক-আপ বা ময়শ্চারাইজার লাগানোর পূর্বে ব্যবহার করা হয়। এটি মুখের লোমকূপ গুলোকে ছোট করে এবং অত্যাধিক তৈলাক্ত উপাদান গুলো বের করে দেয়। ফলে আপনি পান ফ্রেশ, মসৃণ, পরিষ্কার এবং হেলদি গ্লোয়িং স্কিন। তবে ভাল ফলাফল পেতে এই স্কিন টোনারের ব্যবহার হতে হবে যথাযথো। আসুন টোনার কিভাবে ব্যবহার করতে হবে জেনে নিই।

১। প্রথমেই আপনি সঠিক টোনারটি বাছাই করুন। বাজারে বিভিন্ন রকম টোনার পাওয়া যায়। তবে এরকম টোনার বাছাই করুন যেটিতে অ্যালকোহল নেই, কারণ অ্যালকোহল ত্বককে শুষ্ক করে তোলে। যদি আপনার ব্রণ থাকে তাহলে ব্রণের জন্য বিশেষ ধরণের টোনার পাওয়া যায়।

২। আপনার মুখ ভালভাবে ধুয়ে মুছে শুকিয়ে নিন।

৩। তুলোর বল বা প্যাডে অল্প পরিমান টোনার লাগিয়ে নিন। তুলোর বলে খুব বেশি টোনার দ্রবণটি শুষিয়ে নেবেন না। এমন ভাবে নেবেন যেন ত্বক শুষ্কও না থাকে আবার ভেজা ভেজাও না থাকে।

৪। তুলোর বলটি দিয়ে আলতো করে মুখের সব জায়গায় টোনার লাগান। নাকের পাশে এবং হেয়ার লাইনগুলোতে ভাল করে লাগাবেন। সতর্ক থাকতে হবে যেন লাগানোর সময় ঘষাঘষি না হয়।

৫। টোনারটি ফেইসে ভালভাবে শোষণ করার জন্য দুই মিনিট অপেক্ষা করুন।

৬। এরপর ভাল কোন ব্র্যান্ডের ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন কিংবা মেক-আপ শুরু করুন।

সতর্কতা
* টোনার দ্রবণ চোখ এবং এর আশপাশের কোমল ত্বক থেকে দূরে রাখুন।
* যদি আপনার ত্বক শুষ্ক হয় তাহলে আপনি প্রতিদিন বা কয়েকদিন পর পর টোনার ব্যবহার করতে পারেন।
* কোন কোন বিউটি এক্সপার্টের মতে টোনার লাগানোর আগে তুলোর বলটি হালকা গরম পানিতে ডুবিয়ে, চিপরিয়ে নিয়ে তারপর টোনর ব্যবহার করলে ভাল ফল পাওয়া যায়।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin