দারুন ট্রেন্ডি দুটি হেয়ার স্টাইল মাত্র ৫ মিনিটে করে ফেলুন (দেখুন ভিডিওতে)

maxresdefault-1

বিয়ের অনুষ্ঠান হোক কিংবা ঘরোয়া কিংবা কোন পার্টি সবাই চান চুলটি একটু ভিন্নভাবে বাঁধতে। আবার অনেকের শখ নিত্য নতুন স্টাইলে চুল বাঁধা। কিন্তু সব সময় সময়ের অভাবের কারণে স্টাইল করে চুল বাঁধা সম্ভব হয়ে উঠে না। আবার কোন অনুষ্ঠানের আগে চুল বাঁধার জন্য পার্লারে যাওয়ার মত সময় হয় না। যদি অল্প সময়ে দারুন হেয়ার স্টাইল দেওয়া যায় তবে কেমন হয় বলুন তো? চুলের একটি ভিন্ন স্টাইল দিতে পারে ভিন্ন একটি লুক।

চুলের এই স্টাইলটি পার্টি ছাড়াও কলেজ, ভার্সিটি কিংবা অফিস সব জায়গাতেই করতে পারবেন। ওয়েস্টার্ন, কিংবা সালোয়ার কামিজ উভয় পোশাকে দারুন মানিয়ে যাবে এই হেয়ার স্টাইল। আবার খুব বেশি সময়ের প্রয়োজন পড়বে না এই হেয়ার স্টাইল করার জন্য। দারুন এই স্টাইলটি ছোট একটি ভিডিও এর মাধ্যমে দেখে নিন।

যেভাবে করবেন:

প্রথম হেয়ার স্টাইল:

১। প্রথমে সামনের চুলগুলো কিছুটা পাফ করে পিছনে নিয়ে আসুন। এইবার সামনের চুলগুলো পিছনে এনে ক্লিপ দিয়ে আটকিয়ে দিন।

২। এবার ডানপাশ থেকে (কানের পাশ থেকে) কিছু চুল রোল করে নিয়ে পিছনে ক্লিপ দিয়ে লাগান। একইভাবে বামপাশ থেকে কিছু চুল রোল করে ক্লিপ দিয়ে লাগান।

৩। একইভাবে এইরকম করে আরেকটি লাইন করুন। তারপর বাকি চুলগুলো দিয়ে বেনি তৈরি করে নিন।

৪। বেনিটি হাতে পেঁচিয়ে ছোট একটি খোঁপা তৈরি করুন। এই খোঁপাটি ক্লিপ দিয়ে লাগিয়ে ফেলুন।

৫। এবার আয়নায় দেখুন কি দারুন একটি হেয়ার স্টাইল হয়ে গেছে।

দ্বিতীয় হেয়ার স্টাইল:

১। সামনের চুলগুলো পাফ করে ক্লিপ দিয়ে লাগান।

২। পিছনের চুলগুলো দুই ভাগ করে উপর থেকে কিছু চুল নিয়ে একটি পনিটেইল বাঁধুন। নিচের চুলগুলো দিয়ে আরেকটি পনিটেইল বাঁধুন।

৩। এবার প্রথম পনিটেইল টুইস্ট করে খোঁপা বেঁধে ফেলুন। খোঁপাটির চারপাশে কাঁটা বা বেবিপিন দিয়ে লাগান।

৪। এরপর দ্বিতীয় পনিটেইল পেঁচিয়ে খোঁপা করে নিন। খোঁপাটি ক্লিপ দিয়ে লাগিয়ে ফেলুন।

৫। ব্যস হয়ে গেল ভিন্ন স্টাইলের দুটি হেয়ার স্টাইল। এই হেয়ার স্টাইল করতে খুব বেশি সময়ের প্রয়োজন নেই।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin