নববর্ষের সাজ: চুলের সাথে ফুলের বাহার

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

rupcare_hair with flower

নতুন দিনের আনন্দবার্তা নিয়ে আবারও নতুন ঢঙে সাজছে পরিবেশ। পরিবেশের সঙ্গে সেজে উঠছে মনও। আর মনের চারপাশজুড়ে চলছে বৈশাখ বরণের ক্ষণ গণনা। তাই নববর্ষের পুরো পরিবেশ যেভাবে সাজছে, সেই বৈশাখী সাজেও থাকা চাই প্রাকৃতিক আভা। চুলকে সাজের প্রধান আকর্ষণ ধরে, এর সঙ্গে বিভিন্ন ফুলের ব্যবহার আপনাকে দিতে পারে প্রাকৃতিক সাজের অনুভূতি। চুলের আকার ও ধরন অনুযায়ী সাজের বিভিন্ন দিক নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভিন।

তিনি বলেন, চুল মেয়েদের সাজের নান্দনিকতাকে বেশি করে ফুটিয়ে তোলে। তাই চুলের প্রতি একটু লক্ষ্য রাখলে নিজেদের সৌন্দর্য খুঁজে পেতে আর কষ্ট করতে হয় না। চুলের কারণে নিজের বাইরের লুক, রুচিবোধেরও পরিচয় মেলে। সে কারণে অনুষ্ঠান বা আয়োজন অনুসারে চুলে ভিন্নতা সহজেই আনতে পারেন। বিশেষ করে পহেলা বৈশাখের আমেজকে ব্যবহার করে চুলকে অনেকভাবেই সাজানো যেতে পারে। কারণ এ সময়ের সাজের সবচেয়ে আধুনিক অংশ জুড়ে থাকছে চুলের সাজ।

বেণি :
পহেলা বৈশাখে বাঙালি ভাবটা সাজের মধ্যে অবশ্যই থাকতে হয়। তাই চুলের সাজের ক্ষেত্রে আনতে পারেন ভিন্নতা। বৈশাখী চুলের সাজে খোঁপা, বেণি সবার আগে প্রাধান্য পেয়ে থাকে। বিশেষ করে এ দিনটিতে মেয়েদের চুলের বেণির সাজে তাদের বেশি আকর্ষণীয় করে তোলে। আবার এসব ক্ষেত্রেও রয়েছে অসংখ্য সাজ। তাই বিভিন্ন দিকের সাজের মাধ্যমে বেণিকে ফুটিয়ে তোলা সম্ভব।

বয়স অনুযায়ী বেণিগুলোতে বিভিন্ন স্টাইল আনা যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে টিনএজ মেয়েরা বিভিন্ন ঢঙের বেণি করতে পারে। প্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের জন্য বেণি হতে পারে বিভিন্ন স্টাইলে। আর যারা একটু বয়স্ক, তারা চাইলে খুব সাধারণ বেণির মাধ্যমে নিজের সাজকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন। কেউ চাইলে মাথায় তিন-চারটি বেণিও করতে পারেন। আবার একটি বেণি করে পুরো চুলকে সাজিয়ে রাখতে পারেন। এ ধরনের বেণি ফ্রাঞ্চ বেণি নামেই বেশি পরিচিত। কেউ চাইলে কপালের দু’পাশ থেকে টেনে দুটি বেণি করতে পারেন।

চুলে সঙ্গে ফুল :rupcare_hair with flower1
বিভিন্ন ঢঙের বেণিতে বৈশাখী আমেজ দিতে অবশ্যই ফুলের ব্যবহার আনা যেতে পারে। তবে সে ক্ষেত্রেও ফুলের ব্যবহার বয়সভিত্তিক হওয়া উচিত। টিনএজ মেয়েরা তাদের কপালের দু’পাশে ফুলের ব্যবহার করতে পারে। আবার চাইলে ভ্রু ছুঁয়েও ব্যবহার করতে পারেন বিভিন্ন ফুল। এ ছাড়া কানের একপাশে বা খোঁপাজুড়েই ফুলের ব্যবহার থাকতে পারে। আবার বিভিন্ন ধাঁচে চুলকে টুইস্ট করে খোঁপায়ও ফুল ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে সাজে আরেকটু রুচিশীল হতে চাইলে ফুলের তৈরি বিভিন্ন গহনা চুলের সাজের অনুষঙ্গ হিসেবে আসতে পারে। সে ক্ষেত্রে ফুল দিয়ে টিকলি করে, গলার মালা করে বা কানের দুলের সঙ্গে জড়িয়ে ফুলকে গয়না হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

বৈশাখে মেয়েদের সাজের বিশেষ অংশজুড়ে থাকবে শাড়ির ব্যবহার। শাড়ির সঙ্গে যারা চুল ছেড়ে রাখতে চান তারা চুলকে ফুলের ছোঁয়ায় সাজিয়ে রাখতে পারেন। আর এসব চুল সাজে ফুলের ব্যবহারে আনতে পারেন গোলাপ, রজনীগন্ধা, গাঁদা, বেলি ছাড়াও বিদেশি বিভিন্ন ফুলের সমাহার। কাপড়ের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে বা খোঁপা ও বেণির ওপর নির্ভর করেই নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন এসব ফুলের স্পর্শে। যা আপনাকে নতুন দিনের পরিবেশে আরও ফুটিয়ে তুলবে।

বড় চুলের সাজ
যাদের চুল লম্বা তারা বিভিন্নভাবে ফুল দিয়ে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন। নিচে বড় চুলের সাজ নিয়ে কিছু টিপস্ দেওয়া হলো—

# হাতখোঁপা অথবা একটু ভিন্নভাবে খোঁপা করে নিন। খোঁপার চারপাশে ছোট ছোট গোলাপ আটকে দিন। ঠিক খোঁপার মাঝখানে বড় একটি গোলাপ লাগান। এবার আয়নায় নিজেকে দেখুন কতটা সুন্দর লাগছে আপনাকে।

# পুরো খোঁপাটি বেলীফুলের মালা দিয়ে ঢেকে দিতে পারেন। কানের পাশ দিয়ে অন্যকোনো একটি ফুলের মালা লাগান। এতেও আপনাকে অনেক সুন্দর লাগবে।

# চুলগুলো গুছিয়ে নিয়ে বেণী করে ফেলুন। শক্তভাবে বেণী শুরুর প্রান্ত থেকে ৮ থেকে ১০টি বেলী ফুলের মালা আটকে নিন।

# বেণী করে শুধু গাজরা লাগাতে পারেন।

# একটু ভিন্নতা আনতে চাইলে বেলীফুলের সঙ্গে বেণীর উপর থেকে নিচ পর্যন্ত একটু পরপর ছোট সাদা গোলাপ আটকাতে পারেন।

# খোলা চুলেও কানের পাশ দিয়ে দু-তিনটি ফুল লাগিয়ে নিতে পারেন।

# বেণীজুড়ে ছোট কোনো ফুলের মালা পেঁচিয়ে পরতে পারেন। এতেও আপনাকে সুন্দর লাগবে।

তথ্যসূত্র: সমকাল ও ইত্তেফাক

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin