নারকেল তেলের অভিনব ব্যবহার শীতের রূপচর্চায়

rupcare_coconut

শীত মানেই শুষ্ক ত্বক আর রুক্ষ চুলের সমস্যা? তাই চুল ও ত্বকের সুস্থতায় অবশ্যই পরিচর্যা করুন। আপনার হাতের কাছে থাকা খুব সাধারণ একটি জিনিস হল নারকেল তেল, আর এই তেল দিয়েই আপনি শীতে বেশ ভাল করে নিজের পরিচর্যা করতে পারেন। তাই এখন থেকেই পরিচর্যা করা শুরু করুন নারকেল দিয়ে, সুন্দর ত্বক ও কোমল চুল পেয়ে যান আপনার হাতের মুঠোয়।

ময়েশ্চারাইজার

শীতকালের রুক্ষ আবহাওয়ায় হাত ও পায়ের ত্বকে ময়েশ্চারের অভাব দেখা দেয়। ফলে ত্বক ক্রমশ শুষ্ক ও রুক্ষ হতে শুরু করে। তাই এই সমস্যায় ব্যবহার করতে পারেন নারকেল তেল, তবে বিশেষ করে হাতে ও পায়ে। প্রতিদিন গোসল করার আগে নারকেল তেল সামান্য গরম করে হাতে ও পায়ে ভাল করে লাগিয়ে নিন।

বডি স্ক্রাবার

কোমল ত্বক পেতে বা ত্বকের কালো দাগ দূর করতে, ত্বক এক্সফলিয়েট করা অত্যন্ত জরুরি। নারকেল তেল বডি স্ক্রাবার হিসেবে বেশ ভাল কাজ করে। আধা কাপ নারকেল তেল ও সামান্য বেসনের সঙ্গে বড় দানার চিনি বা লবন মিশিয়ে সারা শরীরে ঘষুন। যতক্ষণ না চিনি গলে যাচ্ছে ততক্ষণ হালকা হাতে ঘষতে থাকুন। এইভাবে সপ্তাহে দু’দিন ব্যবহার করুন।

ঠোঁটের যত্ন

শীতে যাদের ঠোঁট ফাটে তাঁরা লিপবাম হিসেবে নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। একটা পাত্রে নারকেল তেল নিয়ে রুম টেম্পারেচারে রেখে দিন। সেমি লিকুইড হয়ে গেলে লিপবাম হিসেবে ব্যবহার করুন। এটা দিনের যেকোন সময়ই লাগাতে পারেন। এই উপায়ে ঠোঁট ফাটার সমস্যা থেকে তো রেহাই পাবেনই ঠোঁট ও কোমল হবে।

আই ক্রিম

রোজ রাতে শুতে যাওয়ার আগে তুলোতে নারকেল তেল লাগিয়ে চোখের উপর রেখে দিন। আইপ্যাড হিসেবে ব্যবহার করুন। চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ রিল্যাক্স করুণ। এই উপায়টি দারুন কাজে দেয়। শুধু তাই নয় প্রতিদিনের ব্যবহারে দেখবেন ধীরে ধীরে চোখের চারপাশের ডার্ক সারকেল গায়েব হয়ে গেছে।

মেক-আপ রিমুভার

সুন্দর থাকতে আমরা সবাই কম বেশি মেক-আপ করে থাকি। কিন্তু সেই মেক-আপ নিয়ে তো আর বসে থাকা যায়না। তাই সুন্দর ভাবে মেক-আপ তুলতে নারকেল তেল খুব ভাল কাজে দেয়। সেক্ষেত্রে তুলোয় নারকেল তেল নিয়ে মুখে , গলায় ও ঘাড়ে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে তুলো দিয়ে মুখ মুছে নিন। দেখবেন কড়া মেক-আপও সহজে উঠে যাবে।

চুলের যত্নে

শীতে রুক্ষ চুলের সমস্যাতে সপ্তাহে অন্তত একদিন হট ওয়েল ম্যাসেজ করুন। নারকেল তেল সামান্য গরম করে চুলের গোড়ায় ও চুলে লাগিয়ে নিন। তারপর আঙুলের ডগা দিয়ে হালকা করে কিছুক্ষণ ম্যাসেজ করুন। এতে ব্লাড সার্কুলেশন ভাল হবে। তারপর তোয়ালে হালকা কুসুম গরম পানিতে ভিজিয়ে নিংড়ে নিয়ে মাথায় পাঁচ মিনিয় জড়িয়ে রাখুন। এই পদ্ধতিটা ৩/৪ বার ট্রাই করুণ। এতে সহজে চুলের গোড়ায় তেল ঢুকবে ও পুষ্টি জোগাবে। চুল নরম ও চকচকে হবে। চুল সহজে ম্যানেজ করতে পারবেন। সবশেষে শ্যাম্পু করে নিন।

সূত্র: প্রিয় লাইফ