পারফেক্ট উইং আইলাইনারের কৌশল শিখে নিন (দেখুন ভিডিওতে)

winged-eyeliner

চোখ সাজাতে কাজলের পাশাপাশি আইলাইনারে অবদান কম নয়। চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে আইলাইনার বেশ জনপ্রিয় এবং প্রচলিত একটি প্রসাধনী। অনেকের কাছে সাজ বলতে আইলাইনার আর হালকা লিপস্টিকের ছোঁয়াকেই বুঝে। একই স্টাইলে আইলাইনার দিতে দিতে বিরক্ত হয়ে গেছেন? আর কত ভাল লাগে একই স্টাইল। এই একঘেয়েমি কাটানোর জন্য আইলাইনারের স্টাইলে করা হয় ভিন্ন ভিন্ন ডিজাইন। আবার সময়ের সাথে ফ্যাশনের তালে তালে পরিবর্তন হয়ে থাকে আইলাইনারে ধরণ-ধারণ।

আইলাইনারের বেশ জনপ্রিয় একটি স্টাইল হল উইং লাইনার। সাধারণ কামিজ হোক কিংবা শাড়ি উভয় পোশাকের সাথে বেশ ভাল মানিয়ে যায় এই আইলাইনারের স্টাইলটি। চোখকে একটু গর্জিয়াস করে সাজানোতে এই স্টাইলটি ব্যবহার করলে তেমন কোন মেকআপের প্রয়োজন হয় না। কিন্তু অনেকেই পারফেক্ট উইং লাইনার স্টাইলটি করতে পারেন না। তাদের জন্য আজকের এই ভিডিওটি। খুব সহজে পারফেক্ট এবং আর্কষণীয় উইং লাইনার করতে পারবেন। তাহলে দেখে নিন ছোট ভিডিওটি।

আইলাইনার ব্যবহারে কিছু টিপস যা আপনাকে সাহায্য করবে।

টিপস:

১। আই মেকআপকে দীর্ঘস্থায়ী করতে চাইলে ম্যাচিং আইশ্যাডোর সাথে আই লাইনার ব্যবহার করতে পারেন। পেনসিল আইলাইনার এইক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। এরপর আইলাইনারের উপরে ম্যাচিং শেড এর আই শ্যাডো লাগিয়ে নিন।

২। আইলাইনার ব্যবহারের আগে আই প্রাইমার ব্যবহার করে নিন। এতে আই মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী হবে।

৩। নিজের পছন্দের রং এর আইলাইনার ব্যবহার করতে চাইলে আপনার চিকন মেকআপ ব্রাশটিকে ভিজিয়ে নিন। এরপর ভেজা ব্রাশটিতে আইশ্যাডো লাগিয়ে ব্যবহার করুন। আইলাইনারের মতোই দেখাবে আপনার আইশ্যাডো দিয়ে আঁকা আইলাইনটি।

৪। লিকুইড আইলাইনার অনেকেই ব্যবহার করতে পারেন না। কারণ লিকুইড আইলাইনার ব্যবহার করতে গেলে দুই চোখ দুই রকম হয়ে যায় অনেক সময়। নিখুত ভাবে লিকুইড আইলাইনার দিতে চাইলে প্রথমে চোখটাকে পেনসিল আইলাইনার দিয়ে একে নিন। এরপর ধীরে ধীরে পেনসিলের দাগ বরাবর লিকুইড আইলাইনার লাগিয়ে নিন।

৫। কাজলের পরিবর্তে চোখের নিচে পেনসিল আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin