পুরুষের চারটি বদগুণ, যা নারীর অপ্রিয়

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

rupcare_woman hates man0

নারী পুরুষ উভয়েরই কিছু বদগুণ আছে যা অপর পক্ষের কাছে বিরক্তির বিষয়। তবে পুরুষের সাধারণ চারটি বদগুণ যা নারীদের খুবই অপছন্দ, এগুলোর বিস্তারিত ও তা থেকে সমাধানের উপায় নিয়েই এ লেখা।

অন্তরঙ্গ মুহূর্তে মোবাইল ফোন ব্যবহার
ডেটিংয়ের সময় কাউকে মোবাইল ফোনে ম্যাসেজ পাঠালে কিংবা মোবাইল ফোনে অফিসিয়াল বা ব্যবসায়িক কথাবার্তা বলা শুরু করলে নিশ্চয়ই সব নারীই বিরক্ত হবেন। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ধরনের আচরণের মানে এটা নয় যে, সে সম্পর্কের বিষয়ে রূঢ়। ফলে এধরনের আচরণে বিভ্রান্ত হওয়াও উচিত নয়। এ বিষয়টাতে বিরক্ত হলে তা ঠাণ্ডা মাথায় বুঝিয়ে বলাই ভালো।

rupcare_woman hates man3

কোনো বিষয়ে মন্তব্য করতে না চাওয়া
নারীর কোনো প্রশ্নের উত্তর যদি পুরুষের জানা না থাকে, তখন তারা নিরব থাকে কিংবা জানায়, ‘আমি ওসব পাত্তা দেই না’। এমন উত্তর নারীর পছন্দ না হলে তাকে জানিয়ে দিতে হবে এ বিষয়ে আগ্রহের কথা। সে যদি বিরক্ত হয় বা কোনো উত্তর দিতে না চায়, তাহলে জানাতে ভুলবেন না যে, তার মতামত আপনার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কাজ থেকে ফেরার পর তার নিরবতাrupcare_woman hates man1
কাজ থেকে ফেরার পর অধিকাংশ পুরুষই নিরব থাকেন। সারাদিনের কর্মব্যস্ততার পর অনেকেই খুব ক্লান্ত থাকেন। ফলে এ সময় বিশ্রামের জন্য কিছু সময় দেয়া গুরুত্বপূর্ণ। এ সময় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা শুরু করলে বিবাদ লাগার সম্ভাবনা থাকে। তার বদলে এ ধরনের অবস্থায় একটু সময় নিয়ে বিশ্রামের সুযোগ দেয়াই ভালো।

সাজগোজে সময় নিলে বিরক্ত হওয়া
পুরুষের সাজগোজে বা রেডি হতে সময় কম লাগে। আর নারী যখন সাজগোজে সময় নেয়, তখন পুরুষ বিরক্ত হয়। সাজগোজের সময় এ ধরনের তাড়া দেওয়া আবার অনেক নারীর খুবই অপ্রিয়। এ সময় পুরুষকে কোনো কাজে ব্যস্ত রাখাই সবচেয়ে ভালো উপায়।

তথ্যসূত্র: কালের কন্ঠ