বিয়ের পর নিশ্চয়ই হানিমুনে যাবেন ? মাথায় রাখুন কিছু বিষয়

rupcare_honeymoon1

বিয়ের পর মধুচন্দ্রিমার বিশেষ কয়েকটি দিন স্মরণীয় করে রাখার জন্যে উন্মুখ হয়ে থাকেন সব দম্পতিই। তবে সে প্ল্যানিং তো আর বিয়ের পরের জন্য ফেলে রাখলে চলে না। তাঁর প্রথম কারন অবশ্যই ছুটি সীমিত। অফিসে ও সংসার জীবনে পুরোপুরি সময় দেয়ার আগে দুজনে একান্তে বেরিয়ে আসা চাই-ই। বিয়ের প্রস্তুতিতে যতই ব্যস্ত থাকুন না কেন হানিমুন প্ল্যানিংটা দুজনে মিলে করলেই ভালো। আজকাল অনেকেই দেশের বাইরে যাওয়ার জন্য হানিমুন প্ল্যান করে থাকেন।

সেই ক্ষেত্রে অন্যদের থেকে জেনে নিতে পারেন ভ্রমনের কিছু জায়গা সম্পর্কে নানা তথ্য। তবে জায়গা পছন্দ করা থেকে শুরু করে হলিডে এক্টিভিটিজের খোঁজখবর নেওয়া সব দুজনের সম্মতিক্রমেই ঠিক করুন। দু,জনের পছন্দ যদি মিলে যায় তাহলে তো কোন কথাই নেই। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে বেশির ভাগ সময় তা হয়না। আপনি রিলেক্সিং হলিডের পক্ষপাতী কিন্তু আপনার সঙ্গীর পছন্দ অ্যাডভেঞ্চার ট্যুর তাই এমন সমস্যা হলে দুজনে মিলে ভালমত বুঝে শুনে প্ল্যান করুন। তবে এই ক্ষেত্রে নিজের মতামত জোর করে চাপিয়ে দিলে কিন্তু সারাজীবন কথা শুনে যেতে হবে।

আরও একটি কথা, ইন্টারনেট ঘেঁটে অজানা জায়গায় সারপ্রাইজ ট্রিপে না যাওয়াই ভালো। জায়গাটা খুব পছন্দ হলেও আগে বিশ্বস্ত ট্রাভেল এজেন্টের থেকে ভাল করে খোঁজখবর নিয়ে তারপর যান। যদি এক্তু অন্য ধরনের হানিমুনের প্ল্যান করতে চান তাহলে ক্রুজিং খুব ভালো অপশন। নানা ধরনের বাজেটে ফিট করে যাওয়া ক্রুজ রয়েছে। ক্রুজে বেড়াতে গেলে জায়গা দেখার সঙ্গে সঙ্গে আরাম-বিলাসের প্রচুর সুযোগও থাকে। এছাড়াও জঙ্গল, পাহাড় বা সমুদ্রের কাছাকাছি রিসোর্টেও আরাম এবং অ্যাডভেঞ্চারের অনেক সুযোগ পাবেন। স্পা, সুইমিং পুল, বোর্ড গেমসের সঙ্গে সঙ্গে মাউটেন হাইকিং, বিচ এক্টিভিটিজ বা সাফারিও এনজয় করতে পারেন। আর যাই হোক মধুর সৃতি ধরে রাখতে ক্যামেরা নিয়ে যেতে কখনো ভুলবেন না।

সূত্র: প্রিয় লাইফ