ভালোবাসা দিবসে স্বামীকে চমকে দিতে করুন এই কাজগুলো!

rupcare_lover

ভালোবাসা কী শুধুমাত্র ভালোবাসা দিবসের জন্য? যে কোন সম্পর্কেই ভালোবাসা চিরকালের। তবে বিশেষ এই দিনটি আমরা সকলেই চাই একটু অন্যভাবে উদযাপন করতে। তাই বলে যে এই দিনটি বাইরে কোন দামী রেস্তোরাঁয় গিয়ে উদযাপন করতে হবে এমন কোন কথা নেই। আপনি চাইলে একটু অন্যভাবে সবকিছু প্রস্তুত করে ঘরেই উদযাপন করতে পারেন স্বামীর সাথে ভালোবাসা দিবসটি। বিশেষ এই দিনটিতে বাহিরে তো সবাই যায়। রেস্তোরাঁর ভিড়, রাস্তায় যানজট, যেখানে যাবেন সেখানেই কোলাহল, দিনশেষে মনে হবে যে ভালোবাসা দিবসটি মন মতো করে সঙ্গীর সাথে পালন করাই হল না। তাই কী করে স্বামীকে চমকে দেবেন এই বিশেষ দিনটিতে, জেনে রাখুন কিছু কৌশল।

সারপ্রাইজ প্ল্যান করুন

ভালোবাসা দিবসের ট্র্যাডিশনটাই এমন যে পুরুষেরা তার সঙ্গীকে কোন কিছু করে অবাক করে দেবে। তবে এই নিয়মে একটু পরিবর্তন আনলে কিন্তু খারাপ হয় না। কারণ সম্পর্কে রোমান্স তখনই ভাল লাগে যখন তা একেবারেই অপ্রত্যাশিত ভাবে আসে। এমন কিছু প্ল্যান করুন যাতে করে স্বামীকে সারপ্রাইজ দেয়া যায়। ফুল অথবা কার্ড সঙ্গীর অফিসে পাঠাতে পারেন, চাইলে আপনি নিজেই লাঞ্চ বক্সে তার পছন্দের খাবার তৈরি করে নিয়ে যেতে পারেন। এমন কোন উপহার দিতে পারেন যেন সঙ্গী খুশি হওয়ার থেকে বেশি অবাক হয়ে যান।

বিশেষ এই দিনটিতে নিজেকে অন্য ভাবে সাজিয়ে নিন

ভালোবাসা দিবস নিয়ে যদি স্বামীর কোন প্ল্যান থেকে থাকে তাহলে, নিজেকে এমন ভাবে তৈরি করে নিন যেন স্বামী আপনাকে দেখে রীতিমত চমকে যান। আপনি সবসময় যেভাবে সাজগোজ করেন, বিশেষ এই দিনটিতে তার চাইতে একটু অন্যভাবে সাজুন। শাড়ি তো অনেকেই পরে থাকেন, আপনি চইলে লং গাউন বা বাহারি ওয়েস্টার্ন ড্রেস পরতে পারেন। আজকাল এমন ড্রেস খুব চলছে এবং খুব স্টাইলিশও।

বিশেষ এই দিনটিতে একে অপরকে প্রমিস করুন

ভালোবাসা শুধু এই দিনটির জন্যই নির্ধারিত নয়। সম্পর্কে ভালোবাসা আরও বেশি মজবুত করতে ভালোবাসা দিবসেই একে অপরকে কিছু কিছু বিষয়ে প্রমিস করুন যেন আগামী দিনগুলোও সবসময় ভালোবাসায় পরিপূর্ণ থাকে।

বিশেষ এই দিনটি শুধুমাত্র রাখুন স্বামীর জন্য

হয়তো আপনি শ্বশুর-শাশুড়ির সাথে থাকেন, ফলে স্বামীর জন্যে স্পেশাল কিছু করতে লজ্জা পাচ্ছেন বা সন্তানদের কারণেও এই দিনটিকে উদযাপন করতে আপনার কাছে অন্যরকম লাগছে। কিন্তু এতো কিছু ভাবার কি কোন দরকার আছে? মাঝে মাঝে নিয়ম ভেঙে লজ্জা হারিয়ে অনেক কিছুই করতে হয়। তাই এমন কোন বুদ্ধি করুন যেন এক ঢিলে দুই পাখি মারা যায়। স্বামীও খুশি থাকবে পাশাপাশি সন্তান ও পরিবারের অন্যরাও।

নিজের ঘরেই ভালোবাসাময় পরিবেশ তৈরি করুন

বিশেষ এই দিনটি যে বাইরেই পালন করতে হবে তা নয়, আপনি চাইলে ঘরেই উদযাপন করতে পারেন এই দিনটি। সকাল সকাল উঠেই সবকিছু গুছিয়ে নিন আর এমন ভাবে সাজিয়ে নিন যেন ঘরকে বাহিরের কোন দামী রেস্তোরাঁ থেকে কোন অংশে কম না লাগে। স্বামীর পছন্দের ফুল এনে ঘর সাজিয়ে নিন, বিশেষ এই দিনটি আরও বিশেষ করার জন্য নিজেদের শোয়ার ঘরটিকে একটু স্পেশাল করে সাজিয়ে রাখতে পারেন। হালকা ভলিউমে কোন রোমান্টিক গান ছেড়ে রাখতে পারেন। নিজের ও সঙ্গীর পছন্দ মতো কিছু রান্না করুন একসাথে ঘরে বসেই ক্যান্ডেল লাইট ডিনার করতে পারেন।

ভালোবাসি কথাটি বলতে ভুলবেন না

দাম্পত্যে অনেক স্বামী-স্ত্রীই একে অপরকে ভালোবাসি কথাটি বলতে লজ্জা বোধ করেন কিংবা প্রতিদিনের ব্যস্ততার জন্যও মুখ দিয়ে ভালোবাসি কথাটি বলা হয় না। কিন্তু বিশেষ এই দিনে একটু ভিন্ন ভাবে সঙ্গীকে ভালোবাসার কথা জানিয়ে দিন। তা হতে পারে কোন চিঠি, কিংবা কোন বিশেষ উপহার, অথবা অন্য কোন ভাষায় ভালোবাসার কথা…

এমন কিছু করুন স্বামীর জন্য যা সে ভালোবাসে

ব্যস্ততার জন্য নিশ্চয়ই একসাথে টিভি দেখতে পারেন না বা মুভিও দেখতে পারেন না। তাই বিশেষ এই দিনটিতে সব কিছু ভুলে গিয়ে কোন রোম্যান্টিক মুভি দেখুন। যা হতে পারে- নোটবুক, পিএস আইলাভ ইউ, এ ওয়াকটু রিমেম্বার, সুইট নভেম্বর ইত্যাদি। এতে করে নিজেদের মাঝেও ভালোবাসার তীব্রতা আরও বেশি তীব্র হবে।

সবশেষে রোমান্স করতে ভুলবেন না

দাম্পত্য জীবনে যৌনমিলন খুব স্বাভাবিক একটি ব্যপার। কিন্তু স্বাভাবিক হলেও এটি এমন একটি বিষয় যায় সম্পর্ককে আরও বেশ মজবুত করে তুলে। তাই বিশেষ এই দিনটিতে নিজেদের আরও বেশি প্রানবন্ত করে তুলতে রোমান্স করতে একেবারেই ভুলে যাবেন না। একে অপরকে এতো বেশি ভালবাসুন যেন সারা জীবন বিশেষ এই দিনটির কথা মনে রেখে মন ভালো করা যায়।

সূত্র: প্রিয় লাইফ

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin