মিতা নূরের মৃত্যু, স্বামীই হত্যাকারী: দাবি বাবার

|গসিপ ডেস্ক|

জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিতা নূরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ  সোমবার ভোরে রাজধানীর গুলশানের বাসার ড্রয়িংরুম থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। আজ ভোরের দিকে মিতা নূরের পরিবারের লোকজন থানায় ফোন করে পুলিশ ডাকে। সকাল পৌনে সাতটার দিকে পুলিশ মিতা নূরের গুলশান-১-এর ১০৪ নম্বর রোডের ১৬ নম্বর বাসার ড্রয়িংরুমের সিলিং ফ্যান থেকে মিতা নূরের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। এ সময় বাড়িতে তার পরিবারের অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
ঘটনা সম্পর্কে তাত্ক্ষণিকভাবে পরিবারের সদস্যদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। পুলিশও কিছু জানায়নি। সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা চলছে। আফজাল হোসেনের নির্দেশনায় আশির দশকের শুরুতে অলিম্পিক ব্যাটারীর বিজ্ঞাপনে মডেল হবার সুবাদে রাতারাতিই তারকা বনে যান মিতা নূর। এই বিজ্ঞাপনের ‘আলো আলো বেশি আলো’ জিঙ্গেলটি সে সময় ব্যাপক দর্শকপ্রিয়তা পায়।

স্বামী শাহানূর রহমান রানার অত্যাচার ও নির্যাতনেই অভিনেত্রী মিতা নূরের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছেন মিতা নূরের বাবা ফজলুর রহমান।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, “স্বামী শাহনূরের সঙ্গে মিতার প্রায়ই ঝগড়া হতো। এর আগে তাকে দুইবার হত্যার চেষ্টা করা হয়। স্বামীর অত্যাচার, নির্যাতনেই এ ঘটনা ঘটেছে।”
তবে মিতা নূর আত্মহত্যা করেছেন নাকি হত্যা করা হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

মিতা নূরের মৃত্যুর খবরে ছুটে আসেন অভিনেত্রী তারানা হালিম, এমপিসহ নাট্যাঙ্গনের বিশিষ্টজনেরা।
মিতা নূর ও শাহানূর রহমান রানার দুই ছেলে- সাদমান নূর প্রিয় ও শেহজাদ নূর পৃথী।

এদিকে, ঘটনার বিষয়ে মিতা নূর পরিবারের গাড়ির চালক সবুজ জানান, মিতা নূর রোববার বাড়ি থেকে কোথাও বের হননি। এর আগে শনিবার দুপুরে মায়ের সঙ্গে দেখা করতে বাসাবো এলাকায় গিয়েছিলেন।
ওইদিন তিনি মোবাইলে ফোনে স্যারের (স্বামী শাহনূর) সঙ্গে উচ্চৈ:স্বরে রাগারাগি করেন। পরে অন্যদের সঙ্গেও তিনি খারাপ ব্যবহার করেন। এরপর বিকেলে পুলিশের একটি ভ্যান নিকেতন অফিসে ম্যাডামের কাছে আসে। তবে কী কারণে পুলিশ অফিসে এসেছিল, সেটা তার জানা নেই বলে জানান গাড়িচালক সবুজ।

গতকাল পর্যন্ত তিনি কায়সার আহমেদ পরিচালিত এটিএন বাংলার প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘উত্তরাধিকার’ এর শুটিং করছিলেন।   মাই টিভিতে ‘চটপটি আড্ডা’ শিরোনামের একটি রান্নার অনুষ্ঠান নিয়মিত উপস্থাপনা করা শুরু করেছিলেন তিনি। ‘ কুলসন নানা পদের ইফতার’ নামক আরেকটি অনুষ্ঠানেরও উপস্থাপনা করেছিলেন তিনি। এ অনুষ্ঠানের প্রথম ও শেষপর্বে তাকে উপস্থাপনা করতে দেখা যাবে। অন্যদিকে, স্কয়ার গ্রুপের সৌজন্যে ‘জিরো ক্যাল’ নামের রান্নার অনুষ্ঠানে তাকে মৌটুসী বিশ্বাসের অতিথি হিসেবে দেখা যাবে। কিছুদিন আগে তার একমাত্র ছেলে প্রিয়’র ‘ও’ লেভেল ফাইনাল পরীক্ষা শেষ হয়েছে । এরই মধ্যে ২-৩টি ঈদের খন্ড নাটকের শুটিং করেছিলেন তিনি। এশিয়ান টিভিতে তার অভিনীত ইদ্রিস হায়দার পরিচালিত প্রচার চলতি ডেইলি সোপ ‘সেকেন্ড ইনিংস’-এ লন্ডন ফেরত একজন তরুণীর ভূমিকায় অভিনয় করছিলেন। নাটকে তার অসাধারণ অভিনয় দর্শকের কাছে ব্যাপক দর্শকপ্রিয়তা পায়। তার প্রচার চলতি অন্য ধারাবাহিক নাটকগুলোর মধ্যে রয়েছে এটিএন বাংলায় ধারাবাহিক নাটক ‘কানামাছি ভো ভো’  , ‘স্কুল মাস্টার’  , ‘কুসুম কলি’ , ‘ভোমরাদহ কলেজ’।

তার এই অকাল মৃত্যুতে আমরা গভীর শোকাহত

পরের খবর: হত্যা নয়, স্বামীর পরকীয়ার বলী মিতা!

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin