শীতের ফ্যাশন ও মেকআপে আনুন নতুনত্ব

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

rupcare_winter fashion1

শীতকে অনেক ক্ষেত্রে ফ্যাশনের ঋতু বলা যায়। এ সময় পোশাক এবং অনুষঙ্গের ব্যবহার থাকে চোখে পড়ার মতো। সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এটি এখন আরও আধুনিক রূপ ধারণ করেছে। পোশাকে এসেছে ওয়েস্টার্ন কম্বিনেশন। শীত এলেই শুরু হয় বাহারি ডিজাইনের পোশাকের সমাহার। সোয়েটার, জ্যাকেট আর অন্যসব শীতের পোশাকে আকর্ষণীয় করে তোলে এর এক্সেসরিজ। এর মধ্যে অন্যতম মাফলার ও টুপি। শীতের ফ্যাশনে অনেক বড় ভূমিকা রাখে টুপি। পুরো স্টাইলকে যেন পাল্টে দেয়। তবে মাফলরও বেশি মানানসই।

rupcare_winter fashion2মাফলারের ব্যবহার অনেক আগে থেকেই। শীত এলেই একটি মোটা উলের কাপড় দিয়ে মুখমণ্ডল ও গলা পেঁচিয়ে রাখতে দেখা যেত। তখন শুধু শীতের হাত থেকে বাঁচতে এর ব্যবহার ছিল। কিন্তু বর্তমান সময়ে এ যেন নিয়েছে ভিন্নরূপ। পরিণত হয়েছে শীত স্টাইলের নতুন মাত্রা। প্যাটার্ন, স্টাইল এবং কাপড়ে আনা হয়েছে অনেক পরিবর্তন। যে কোনো পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যায় এসব মাফলার। অনেকে স্কুল ড্রেসের সঙ্গে মানিয়ে মাফলার পরে। অনেক কালারফুল হলেও মনে হয়, পোশাকটির জন্যই তৈরি এটি। সাথে বেছে নেয়া যায় নানারকম টুপি। উলের এসব টুপি কান পর্যন্ত টেনে পরা যায়। তাই উষ্ণ আরাম পেতে এর জুড়ি নেই। তবে বাইরে টুপি বেশ মানানসই। ভাবছেন, এটা শীতে কেন। আসলে শীতের কুয়াশা থেকে রক্ষা পেতে এটা বেশ কার্যকর।

এই এক্সেসরিজ শীতের পোশাকের সঙ্গেই মানায়।rupcare_winter fashion3 ছেলেমেয়েদের এসব সাইড পোশাকে আছে একটু পরিবর্তন। এই ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায় প্যাটার্ন ও ডিজাইনের ক্ষেত্রে। তবে সবই উলের তৈরি। এর একমাত্র কারণ, এগুলো শরীরকে গরম রাখে। আধুনিক ফ্যাশনে সোয়েটার বা জ্যাকেট দুটিই পরতে দেখা যায়। এর সঙ্গে কম্বিনেশন করে নিতে হবে টুপি ও মাফলার। ছেলেরা মাথা ঢাকতে টুপি পরে থাকে। কিন্তু এটা মেয়েদের ক্ষেত্রে একেবারে সুবিধার নয়। এতে চুলের স্টাইল একেবারে নষ্ট হয়ে যায়। অবশ্য চাইলে মাফলার ওড়নার স্টাইলে ব্যবহার করতে পারবেন। মেয়েদের এই স্টাইলটি বেশি দেখা যায়। পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে নিজেই লুকগুলো তৈরি করে নিতে হবে।

এ ধরনের ফ্যাশন আপনার ড্রেসকোডের ওপর নির্ভর করে। যেমন_ অফিসিয়াল লুকে কোট-প্যান্ট থাকলে তার সঙ্গে মানিয়ে একই কালারের মাফলার পরতে পারেন। এটা হতে পারে ওড়নার মতো করে মাথায় পেঁচিয়ে। আবার যদি থ্রিপিস পরে থাকেন, তাহলে শুধু মাফলারটি গলায় পেঁচিয়ে নিন। এমন সব আইডিয়া নিজে থেকে করতে হবে, যা মেইনটেন করে আপনার নিজস্ব লুকে। আবার চাইলে আপনি বিউটি এক্সপার্টের সাহায্য নিতে পারেন।

ছেলেদের ক্ষেত্রেও একইভাবে অফিসিয়াল লুকে পরতে পারেন এক্সেসরিজ। তবে টুপির ব্যাপারে একটু সতর্ক থাকতে হবে। মাফলারও পরতে পারেন ভিন্ন স্টাইলে। ছোট ধরনের কতগুলো মাফলার পাওয়া যায়, সেগুলো গলায় পেঁচিয়ে তার ওপর শার্ট পরতে পারেন। আর ক্যাজুয়াল পোশাকে সবই মানিয়ে যাবে। চাইলে পোশাকের সঙ্গে কালার মানিয়ে নিতে পারেন।

rupcare_winter fashion5তরুণদের চাহিদার কথা চিন্তা করে দেশি ব্র্যান্ডগুলো তৈরি করছে উন্নতমানের মাফলার ও টুপি। তেমনই একটি ‘ডোরস’। তারা ছেলেদের মাফলারে এনেছে কালারের ভেরিয়েশন। কাটিংয়েও আছে ভিন্নতা। কাপড়ের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে উল ও সুতির। সুতির মাফলার মূলত শার্টে বেশি মানাবে। অন্যদিকে মেয়েদের মাফলার সম্পূর্ণ ভিন্নভাবে করা হয়েছে। উলের ব্যবহার দেখার মতো। উল দিয়েই করা হয়েছে বিভিন্ন ফুল। তেমনি ক্যাপে আনা হয়েছে ওয়েস্টার্ন লুক।

এ ছাড়া পাবেন জেন্টাল পার্ক, ইনফিনিটি, ওয়েস্টার্ন বাজারসহ বিভিন্ন শপিংমলে। আপনার অতিপরিচিত নিউমার্কেট, গাউছিয়া, ধানমণ্ডি হকার্স মার্কেট এবং গুলিস্তানেও বিভিন্ন মানের শীতের টুপি, মাফলার পাবেন।

শীতের মেকআপ টিপস
পোশাকের সঙ্গে ত্বকের বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। কারণ, ত্বকের ওপর নির্ভর করে বাকি সাজ। তাই পোশাকের সঙ্গে এটা অনেক বেশি জরুরি। এ সময় কেমন মেকআপ হবে, সেটি খেয়াল রাখুন। পোশাকের সঙ্গে মেকআপ ঠিক রাখতে কী কী করবেন, সেটি নির্ভর করে সময়ের ওপর।

কখন কী করবেন
ময়েশ্চারাইজার: মেকআপ শুরুর আগে ত্বকে লাগিয়ে নিন ময়েশ্চারাইজার। শুষ্ক ত্বকে অয়েল বেসড ময়েশ্চারাইজার, তৈলাক্ত ত্বকে অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার ও কম্বিনেশন ত্বকের টি জোনে অয়েল ফ্রি এবং বাকি অংশে অয়েল বেসড ময়েশ্চারাইজার লাগান।

সানস্ক্রিন: আপনি ফাউন্ডেশনের বিষয়টি না বুঝলে লাগিয়ে নিন সানস্ক্রিন।

ফাউন্ডেশন: শীতে ম্যাট ফিনিশের বদলে শাইন ফিনিশ এমন ফাউন্ডেশন বেশি কার্যকর। অনেকের ক্ষেত্রেই শীতে গায়ের রঙ ১-২ টোন উজ্জ্বল দেখায়। ফলে সামারে ব্যবহৃত ফাউন্ডেশনের শেড ম্যাচ করে না এবং ডার্ক দেখায়। তাই শীতে স্কিন টোনের সঙ্গে শেড মিলিয়ে নেওয়া জরুরি।

বিবি ক্রিম: হালকা মেকআপ করতে চাইলে ফাউন্ডেশনের বদলে বেছে নিন বিবি ক্রিম।rupcare_winter fashion4 গার্নিয়ার বিবি ক্রিম এই শীতে সব ধরনের ত্বকের উপযোগী।

কন্সিলার: ডার্ক সার্কেল, ব্রণের দাগ ও ডার্ক স্পট ঢাকতে বেছে নিন লিকুইড বা ক্রিম কন্সিলার।

কমপ্যাক্ট পাউডার: শীতে বেছে নিন একটু ভারী ধরনের ক্রিম কমপ্যাক্ট পাউডার, যাতে অয়েল কন্টেন্ট বেশি থাকে। এটি ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখবে, অতিরিক্ত শুষ্ক করবে না।

আইশ্যাডো: শীতে চোখের সাজে বেছে নিন ফ্রস্টি, শিমারি আইশ্যাডো। স্মোকি লুক বেশ মানাবে শীতের রাতের পার্টিতে। আইশ্যাডোর আগে লাগান ক্রিম কন্সিলার ও আইপ্রাইমার। আইশ্যাডো দীর্ঘস্থায়ী করার পাশাপাশি এটি আর্দ্রতাও দেবে।

ঠোঁটের সাজ: দামি সুন্দর লিপস্টিক পরলেন অথচ ঠোঁট শুষ্ক ও ফাটা। সে ক্ষেত্রে ভালো দেখাবে না একদমই। লিপস্টিক দেওয়ার আগে ঠোঁটে ভালো মানের লিপবাম লাগান। লিপস্টিকের বদলে ব্যবহার করতে পারেন টিন্টেড লিপবাম আর লিপগ্গ্নস।

ব্লাশ-অন: ব্লাশ শীতের মেকআপের প্রধান আইটেম। শীতের ফ্যাকাশে ত্বককে রঙিন করতে বেছে নিন ব্লাশ। যাদের রঙ ফর্সা ও আন্ডারটোন পিংক, তারা বেছে নিন গোলাপি বা কোরাল শেড। হলুদ আন্ডারটোন ও চাপা রঙ হলে পিচ, টেরাকোটা শেডগুলো বেশি মানাবে। পাউডার ব্লাশ-অনের বদলে বেছে নিন ক্রিম ব্লাশ।

তথ্যসূত্র: শৈলী

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin