সম্পর্কের সব একঘেয়েমি দূর করুন ৭টি উপায়ে

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

আপনার প্রিয়জনের সঙ্গে সম্পর্ক এক সময় একঘেয়েমিতে বিপর্যস্ত হতে পারে। কিন্তু এতে আশা হারালে চলে না। সম্পর্কের একঘেয়েমি কাটানোর কিছু উপায় আছে। এসব চর্চার মাধ্যমে বাস্তবে কিছুটা পরিবর্তন হবে এবং জীবনে ফিরে আসবে রোমাঞ্চ।

১. মনে করুন কেন তাকে ভালোবাসেন
ব্যবসা-বাণিজ্য কিংবা দৈনন্দিন নানা কাজে ব্যস্ত থাকা সহজ। আপনার শিক্ষা, কাজ কিংবা পারিবারিক নানা বিষয় আছে, যা শারীরিক ও মানসিকভাবে আপনাকে ব্যস্ত রাখে। কিন্তু এর মাঝেও আপনি যদি প্রিয়জনকে কেন ভালোবাসেন তা মনে করেন, তাহলে নিঃসন্দেহে তা একঘেয়েমি কাটাতে সহায়ক হবে। এটা কোনো কঠিন কাজ নয়। মনের গভীরে থাকা স্মৃতিগুলো একটু ঝালিয়ে নিন আর অনুভব করুন আপনার মানসিকতার পরিবর্তন।

২. সপ্তাহে একবার ডেটিং করুন
আপনাদের সম্পর্ক যত পুরনোই হোক না কেন, একসঙ্গে সময় কাটানোর প্রয়োজনীয়তা কখনোই ফুরায় না। এ জন্য প্রতি সপ্তাহে একবার অন্তত আপনার সঙ্গীর সঙ্গে একত্রে সময় কাটানোর গুরুত্ব রয়েছে। এ সময়ে একে অন্যের প্রতি গুরুত্ব দিন। আপনাদের সম্পর্ক মাত্র ২৫ দিনের হোক কিংবা দীর্ঘ ২৫ বছরেরই হোক, একসঙ্গে সময় কাটানোর গুরুত্ব কখনোই কমে না।

৩. সম্পর্ক বিষয়ে একত্রে একটি বই পড়ুন
মন খোলা রেখে সম্পর্কের বিষয়ে নতুন নতুন বিষয় শেখার জন্য প্রস্তুত থাকুন। এ জন্য সবচেয়ে ভালো হয় সম্পর্কের বিষয়ে একটি ভালো বই পড়া। এতে আপনারা পরস্পরের সঙ্গে কীভাবে ভালো যোগাযোগ করতে হয়, তা শিখতে পারবেন। এতে বেশ কিছু ফলপ্রসু আলোচনা করতে পারবেন।

৪. মজা করুন
কখনো কখনো আমরা মজা করতে ভুলে যাই। আমাদের জীবন চলে শুধুই রুটিনের মতো। খুবই ভালো হয়, এতে যদি কিছু মজা ও হাসি ঢোকানো যায়। দুজনে একত্রে কিছু মজা করুন কিংবা একটা মজার সিনেমা দেখুন একসঙ্গে। আপনি এটা দেখে অবাক হবেন যে, দুজনে একসঙ্গে মজা করাটা কতো সহজ।

৫. নিজের আগ্রহের বিষয় চর্চা করুন
অনেকেরই কোনো সম্পর্কে জড়িত হওয়ার ফলে নিজের বিষয়ে মনোযোগ দেওয়ার সুযোগ মিলে না। বিশেষ করে নারীদের ক্ষেত্রে এটি বেশি হয়। তবে শুধু একটি বিষয়ে মনোযোগ দিতে থাকলে সেখানে যোগ হতে পারে হতাশার মতো বিষয়। এ কারণে শুধু সঙ্গীর দিকে মনোযোগ না দিয়ে নিজের দিকেও মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন। আপনার নিজের আগ্রহ, শখ ইত্যাদির চর্চাও চালিয়ে নেওয়ার প্রয়োজন আছে।

৬. নিজের দিকে মনোযোগ দিন
আপনার সঙ্গী কি করবে সে বিষয়ে আপনার আগ্রহ বাদ দিয়ে নিজের দিকে আগ্রহ সরিয়ে আনুন। আপনি তার জন্য কী করতে পারছেন, কী করলে তিনি সুখী হচ্ছেন ও আপনাকে বেশি করে ভালোবাসছেন, তা লক্ষ্য করুন। এতে দুজনের সম্পর্কে নতুন মাত্রা তৈরি হবে।

৭. আগ্রহী হোন, পরস্পরের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা রাখুন
কখনো আমরা কোনো কারণ ছাড়াই চিন্তিত হয়ে পড়ি। ছোট কোনো ঘটনাই আমাদের বিচলিত করে দেয়। যদিও দেখা যায়, এতে উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো কোনো ঘটনাই ঘটেনি। এ জন্য মূলত দায়ী সম্পর্ক চক্র। প্রত্যেক সম্পর্কতেই উত্থান-পতনের একটি চক্র থাকে। এ চক্র অনুযায়ী কখনো সময় ভালে যাবে, কখনো খারাপ। এতে বিচলিত হওয়ার মতো কোনো বিষয় নেই। এ সময় প্রয়োজন পরস্পরের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা।

তথ্যসূত্র: কালেরকণ্ঠ

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin