সাধারণ বেবি অয়েলের চমৎকার ৭টি ব্যবহার

rupcare_amazing use of baby oil

সাধারণত বাচ্চাদের শরীর ম্যাসাজ করার জন্য বেবি অয়েল ব্যবহার করা হয়। বাচ্চাদের শরীর ম্যাসাজ করা ছাড়াও বেবি অয়েলের আরও নানা ব্যবহার রয়েছে। ত্বক ময়েশ্চারাইজ করা, মেকআপ দূর করাসহ আরও অনেক সমস্যার সহজ সমাধান পাওয়া সম্ভব বেবি অয়েল থেকে। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক বেবি অয়েলের ভিন্ন ব্যবহারগুলো।

১। শুষ্ক ত্বকের জন্য

গোসলের পর শরীর শুষ্ক হয়ে যায়। বিশেষ করে শুষ্ক ত্বকের অধিকারী যারা তারা এই সমস্যায় বেশি পড়ে থাকেন। গোসলের পর শরীরে বেবি অয়েল ম্যাসাজ করুন। এটি ত্বক ময়েশ্চারাইজ এবং হাইড্রেটেড রাখবে সারা দিন। শুধু তাই নয় বেবি অয়েল হালকা বলে এটি ত্বক তেলতেলে করে না।

২। মেকআপ তুলতে

মেকআপ তুলতে অনেকে ক্লিনজার ব্যবহার করে থাকেন। এই ক্লিনজারের চেয়ে ভাল রিমুভার হল বেবি অয়েল। এক টুকরো তুলো অথবা টিস্যু পেপারে বেবি অয়েল নিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। এতে মেকআপ আর ময়লা সব চলে আসবে।

৩। শেভিং ক্রিমের পরিবর্তে

শেভ করতে গিয়ে দেখলেন শেভিং ক্রিম শেষ, তখন কি করবেন? সেই সমস্যার সমাধান দেবে বেবি অয়েল। শেভিং ক্রিমের পরিবর্তে বেবি অয়েল ব্যবহার করুন। তারপর শেভ করুন। এটি ত্বক ময়েশ্চারাইজও করবে।

৪। চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে

চোখের নিচের কালো দাগ নিয়ে চিন্তায় আছেন? দামী আই ক্রিম ব্যবহার করেও ফল পাচ্ছেন না? এইবার তাহলে বেবি অয়েল ব্যবহার করুন। হাতের তালুতে কয়েক ফোঁটা বেবি অয়েল নিয়ে চোখের চারপাশে ম্যাসাজ করুন। অতিরিক্ত তেল টিস্যু পেপার দিয়ে মুছে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে এটি চোখের নিচের কালো দাগ দূর করে দেবে।

৫। শুষ্ক ঠোঁটের যত্নে

ঠোঁট ফাটা সমস্যা ছেলে মেয়ে উভয় বেশ ভুগে থাকেন। এই সমস্যা চিরবিদায় বলে দেবে বেবি অয়েল। বেবি অয়েল,চিনি এবং লেবুর রস মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করে নিন। এবার এটি ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন সারারাত। পরের দিন সকালে ধুয়ে ফেলুন।

৬। পা ফাটা রোধে

পায়ে বেবি অয়েল ম্যাসাজ করুন। তারপর মোজা পড়ে ঘুমাতে যান। এটি পা ফাটা রোধ করে পা করবে নরম এবং কোমল।

৭। স্ট্রেচ মার্ক দূর করতে

জেদী স্ট্রেচ মার্ক দূর করতেও বেবি অয়েল বেশ কার্যকর। গর্ভকালীন সময়ে বেবি অয়েল ম্যাসাজ করুন। এটি ত্বক ময়েশ্চারাইজ করে স্ট্রেচ মার্ক পড়া রোধ করবে।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedin