স্বাস্থ্য ভাল রাখতে খাওয়ার পর যে ৬টি কাজ করবেন না

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

rupcare_don't do after eating

স্বাস্থ্য নিয়ে আমরা প্রায় সবসময়েই বেশ চিন্তিত থাকি। কোনটায় ভালো হবে, কোনটায় স্বাস্থ্যের ক্ষতি হবে তা নিয়ে আমাদের জানার আগ্রহের শেষ নেই। কিন্তু অনেক সময় অজ্ঞতাবশত কিংবা নানান ভ্রান্ত ধারণার কারণে আমরা নিজেদের স্বাস্থ্যের অনেক বড় ক্ষতি করে ফেলি। বিশেষ করে প্রতিবেলা খাওয়ার পর আমরা এমন কিছু কাজ করি যেগুলো আমাদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি করছে প্রতিনিয়ত। জেনে নিন তেমনই কিছু কাজ সম্পর্কে যেগুলো খাওয়ার পরে কখনোই করা উচিত না।

ধূমপান করা
অনেকেই খাওয়ার পরপরই ধূমপান করে থাকে। ধূমপান খাওয়ার আগে হোক কিংবা পরে হোক, ক্ষতি হবেই। সিগারেটে আছে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান যা মানুষকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। তাই খাওয়ার পরে হোক কিংবা অন্য যেকোন সময়ে হোক, কখনোই ধূমপান করা উচিত না।

চা/কফি খাওয়া
দুপুরে কিংবা রাতে খাওয়ার পরপর অনেকেরই এক কাপ চা না হলে চলে না। যাদের এই অভ্যাস আছে তাঁরা নিজের অজান্তেই নিজের শরীরের ক্ষতি করছেন। চা অ্যান্টি অক্সিডেন্টের ভালো উৎস এবং প্রতিদিন পরিমিত পরিমাণে চা খেলে হৃদপিন্ডের স্বাস্থ্যঝুকি কমে যায়। কিন্তু প্রতিদিন একপেট খাওয়ার পরে চা খাওয়ার অভ্যাসটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। চায়ে আছে পলিফেনল যা সবুজ শাকসবজির আয়রনকে শরীরে গ্রহণ করতে বাধা দেয়। ফলে যাদের শরীরে আয়রনের অভাব আছে তাঁরা খাওয়ার পরে চা খেলে শরীর আয়রণ গ্রহণ করতে পারেনা এবং আয়রণের অভাব পূরণ হয় না। ফলে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। তাই খাওয়ার কমপক্ষে একঘন্টা পরে খাওয়া উচিত।

খাওয়ার ঠিক পরপরই ফল খাওয়া
ফল খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি। শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় সব ভিটামিনই পাওয়া যায় ফলে। কিন্তু ঠিক খাওয়ার পরেই ফল খাওয়া একেবারেই উচিত না। কারণ কলা, কাঠাল ও খেজুর ছাড়া প্রায় প্রতিটি ফলই হজম করতে মোটামুটি ২০ মিনিট সময় লাগে। কিন্তু খাওয়ার ঠিক পরপর ফল খেলে পাকস্থলীতে অন্যান্য খাবারের ভীড়ে ফলের হজমপ্রক্রিয়ায় দেরী হয়ে যায়। এই সময়ে অনেক সময় ফলের মান নষ্ট হয়ে যায়। ফলে পেটের পীড়া, পেটে গ্যাস, বদহজমজাতীয় সমস্যা দেখা দিতে পারে।

খাওয়ার পরপর গোসল করা
ছোটবেলা থেকেই আমরা শুনেছি খাওয়ার পড়ে গোসল না করে খাওয়ার আগে করতে। কিন্তু কখনো কি জেনেছি এই কথা বলার পেছনের সঠিক কারণটা? হজমপ্রক্রিয়ায় শরীরের প্রচুর শক্তি ক্ষয় হয়। আর এই পুরো প্রক্রিয়াটার জন্য পাকস্থলীতে প্রচুর পরিমাণে রক্তচলাচলের প্রয়োজন হয়। ফলে খাওয়ার পরে শরীরের তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে যায়। কিন্তু গোসল করলে শরীরের তাপমাত্রায় তারতম্য হয় এবং পুরো প্রক্রিয়ায় ভারসাম্য রাখতে গিয়ে হজমপ্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটে। ফলে স্বাভাবিক সময়ের চাইতে কমপক্ষে ২০/৩০ মিনিট বেশি সময় প্রয়োজন হয় খাবার হজম হতে।

খাওয়ার সাথে সাথে হাঁটা
খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই অনেকে হনহন করে হাটা শুরু করেন। খাওয়ার ঠিক পরপরই জোরে হাটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। এতে হজমপ্রক্রিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়। খাওয়ার পরে জোরে না হাটলেও স্বাভাবিকভাবে ঘরের ভেতরের হাটাচলা করতে কোনো সমস্যা নেই। তবে খাওয়ার ৩০ মিনিট পরে কিছুটা সময় হাটা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলে জানিয়েছেন ইউনিভার্সিটি অফ সাউথ ক্যারোলিনা এর গবেষকরা।

খেয়েই ঘুমিয়ে পড়া
খাওয়ার পরে যেই কাজটি আপনার শরীরের জন্য সবচাইতে ক্ষতিকর তা হলো ঘুমিয়ে পড়া। খাওয়ার পরে ঘুমিয়ে পড়লে হজমপ্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটে। সেই সঙ্গে ঘুমে সমস্যা, ওজন বৃদ্ধি, নাক ডাকা সহ আরো নানান রকমের স্বাস্থ্যঝুকি দেখা দেয়।

তথ্যসূত্র: প্রিয় লাইফ